গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীসহ চরবাসির দুর্ভোগ চরমে নৌকাই একমাত্র ভরসা

SHARE

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় তিস্তার শাখা নদীর উপর নির্মিত রামডাকুয়া সেতুটি বন্যায় বিধ্বস্থ হওয়ায় শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার চরবাসির দুর্ভোগ চরমে। নৌকাই তাদের একমাত্র ভরসা।
জানা গেছে, গত ২০১২ সালে তৎকালিন এমপি কর্ণেল (অব:) ডাক্তার আব্দুল কাদের খান নিজ অর্থায়নে ইঞ্জিনিয়ারিং প্লান স্টিমেট ছাড়াই পৌর শহরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া তিস্তার শাখা নদীর উপর রামডাকুয়া নামক স্থানে সেতু নির্মাণ করেন । ২০১৫ সালে কয়েক দফা বন্যার স্রোতে সেতুটি বিধ্বস্থ হয়। তখন থেকে নৌকা যোগে উপজেলার বেলকা ইউনিয়নের তালুক বেলকা, বেলকা নবাবগঞ্জ, জিগাবাড়ি, পঞ্চান্দ, শ্যামলার পাট, হরিপুর ইউনিয়নের কানি চরিতা বাড়ী, চর চরিতাবাড়ি, চরিতাবাড়ী, কাশিম বাজার, লখিয়ারপাড়া, রিয়াজ মিয়ারচর উলিপুর উপজেলার বজরা, চর বিরহিম, বিরহিমসহ অন্তত ৪০টি গ্রামের মানুষজন চলাচল করে আসছে এই পথে।
সেতুটি বিধ্বস্থ হওয়ার ২ বছর অতিবাহিত হলেও সেতু নির্মাণ না হওয়ায় প্রতিদিন খেয়া নৌকা যোগে পাড়ি দিয়ে স্কুল ও কলেজেগামী শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার মানুষ তাদের জীবন জীবিকার তাগিদে ওই পথ চলাচল করতে হচ্ছে। এতে করে সময়ের অপচয়ের সাথে সাথে দুভোর্গের কমতি নেই। খেয়াঘাটে দাড়িয়ে এক হতে দেড় ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয় শিক্ষার্থীদের। ফলে প্রতিদিন যথাসময়ে স্কুল ও কলেজে পৌছতে পারে না শিক্ষার্থীরা। অপরদিকে ব্যবসায়িরা চরাঞ্চলে উৎপাদনকৃত বিভিন্ন ফসলাদি উপজেলা শহরে নিয়ে আসছে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম অবুঝকে উপজেলা প্রকেীশলী আবুল মনছুর জানান, সেতুটি নির্মাণের ব্যাপারে মন্ত্রনালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।