সুন্দরগঞ্জে যুবতী নগ্ন ছবি প্রচারের হুমকিদাতা আটক

SHARE

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় মোবাইলে ধারণকৃত জনৈক মেয়ের নগ্ন ছবি প্রচারের হুমকি দিয়ে অর্থ আদায়ের সময় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ পৌর সভায় কর্মরত জ্যাইকা প্রকল্পের প্রকৌশলীকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, সুন্দরগঞ্জ পৌরসভায় কর্মরত জ্যাইকা প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার শান্তাহার (নতুন বাজার) এলাকার মৃত নিতাই চন্দ্র ঘোষের ছেলে নিশান্ত চন্দ্র ঘোষ একই উপজেলার মুরাইল গ্রামের মাসুম মিয়ার নওগাঁ জেলায় আরকো এনজিওতে কর্মরত স্ত্রীর সাথে দীর্ঘদীন থেকে মোবাইল ফোন ও ফেসবুকে প্রেম বিনিময় করে আসছিল। এ অবস্থা চলতে থাকায় উক্ত প্রকৌশলী ওই মেয়ের নগ্ন ছবি সংগ্রহ করে তা ফেসবুকে প্রচারের হুমকি দিয়ে প্রায় সময় বিকাশের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিত।

গত মঙ্গলবার প্রকৌশলী আবারও মেয়েটির নিকট ৩০ হাজার টাকা দাবী করলে অসহায় মেয়েটি তার (প্রকৌশলী)কথা মতো সুন্দরগঞ্জ পৌর শহরের মৃত্তিকা মোবাইল সেন্টারে ৫ হাজার টাকা বিকাশ করে। উক্ত প্রকৌশলী ৫ হাজার টাকা উত্তোলণ করে বাকি ২৫ হাজার টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে উক্ত মেয়ে নিরূপায় হয়ে তার স্বামী মাসুমকে বিষয়টি অবগত করেন। পরে তার স্মামী নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি জিডি করেন। জিডির সুত্রে ধরে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নওগাঁ সদর মডেল থানার এসআই আনাম, এসআই আজাহার ও এএসআই হাবিবের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সু›˜রগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় গতকাল বুধবার সকালে মৃত্তিকা বিকাশের দোকানের পাশে ওৎ পেতে থাকে।

এসময় বিকাশ মালিক উক্ত প্রকৌশলীকে আবারও টাকা এসেছে বলে জানিয়ে দোকানে ডাকলে তিনি টাকা নেয়ার জন্য দোকানে প্রবেশ করা মাত্রই পুলিশ প্রকৌশলীকে আটক করেন। এনিয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানা থেকে আগত এসআই আনামের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন- প্রতারক প্রকৌশলীকে ওই বিকাশের দোকান থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এব্যাপারে সুন্দরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ আতিয়ার রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ অপরাধের জন্য তার চরম শাস্তি হওয়া দরকার। তবে বিষয়টি নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশের এখতিয়ার ভুক্ত।