আজকের সেরা সংবাদ

হাসপাতালের ডাস্টবিনে ৩১ শিশুর ভ্রুণ; ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি

শেয়ার করুন

ডাস্টবিনে ৩১টি মানব ভ্রুণ ফেলে দেওয়ার ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে গাইনী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও নার্সিং ইনচার্জকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অপরদিকে দেহাবশেষগুলো ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। একই সাথে ওই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের পরিচালকের কক্ষে এ বিষয়ে এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। হাসপাতালের পরিচালক ও মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষসহ ঊর্ধ্বতনরা সভায় উপস্থিত ছিলেন। সভায় হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. জহুরুল হক মানিককে প্রধান করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে গাইনী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. খুরশীদ জাহান এবং গাইনী ওয়ার্ডের নার্সিং ইনচার্জ জোৎস্না আক্তারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

তবে অভিযুক্ত ডা. খুরশীদ জাহান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেছেন, তিনি এই ঘটনার কিছুই জানেন না।

অপরদিকে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোশারেফ হোসেন জানান, ভ্রুণগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে দেহাবশেষগুলো যথাযথ প্রক্রিয়ায় সৎকার করা হবে। এ ঘটনায় সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মী মিরাজ হাওলাদার বাদী হয়ে গত সোমবার রাতে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেন। মামলা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাতে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাস্টবিন থেকে ৩১টি মানব ভ্রুণ উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় হলে এই পদক্ষেপ নেয় কর্তৃপক্ষ।