আজকের সেরা সংবাদ

শাহজালাল থেকে মার্কিন নাগরিকসহ দুজনকে পুশব্যাক

শেয়ার করুন

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দুইজনকে পুশব্যাক করে নিজ নিজ দেশে পাঠানো হয়েছে। তাদের একজন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং আরেকজন আইভরি কোস্টের নাগরিক।

বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদ-উল-আহসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সকালে বিমানবন্দরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, সরকার ৩১ মার্চ পর্যন্ত অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ করেছে। এই দুই নাগরিক গতকাল দেশে এলেও তাদের কাছে কোনো ভিসা ছিল না। তাই তারা যে বিমানে এসেছে সেই বিমানেই তাদের ফেরত দেয়া হয়েছে।

শাহজালাল পরিচালক বলেন, ১৬ তারিখ দুপুর ১২টার পর থেকে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের কোনো যাত্রী বাংলাদেশে আসতে পারবে না। সব দেশের জন্য অন-অ্যারাইভাল ভিসা বাতিল করা হয়েছে। করোনা আক্রান্ত কোনো দেশ থেকে বাংলাদেশি কেউ এলে সেলফ (নিজ উদ্যোগে) কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আমরা এসব বিষয় বাস্তবায়ন করেছি। এসব বিষয়ে সব বিমানবন্দর ও এয়ারলাইন্সকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞার পরও কাতারের ফ্লাইট দেশে অবতরণের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা ফ্লাইটটিকে কঠোরভাবে বলে দিয়েছিলাম যে তারা ইউরোপের যাত্রী নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবে না। এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকেও বলে দিয়েছিলাম ফ্লাইটটিকে অবতরণের অনুমতি না দিয়ে কাতারে ফিরিয়ে দিতে। তবে পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের জানানো হলো যে, মানবিক কারণে তারা ফ্লাইটটিকে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দিয়েছে।

বিমানবন্দরের সার্বিক পরিস্থিতির বিষয়ে তিনি বলেন, বিমানবন্দরের সার্বিক অবস্থা ভালো। কোনো থার্মাল স্ক্যানার নষ্ট হয়নি। সবগুলোই চালু আছে। অন্যান্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভালো আছে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব দেশের জন্য অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

এছাড়া ইউরোপ থেকে কোনো যাত্রী (যুক্তরাজ্য বাদে) এলেও তাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

রোববার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান বলেন, সোমবার দুপুর ১২টা থেকে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের অন্য কোনো দেশ থেকে কোনো যাত্রী বাংলাদেশ গ্রহণ করবে না।

তিনি বলেন, এক্ষেত্রে এয়ারলাইন্সগুলো যদি এসব দেশের যাত্রী নিয়ে আসেন, তাহলে তারা নিজ খরচে আবার ফেরত নেবেন।

শনিবার (১৪ মার্চ) রাতে এক ঘোষণায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানান, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ইউরোপ ও করোনা আক্রান্ত দেশগুলো থেকে বাংলাদেশে কেউ আসতে পারবেন না। এছাড়া বাংলাদেশ সব ধরনের অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধের ঘোষণা দেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ইউরোপ এবং সেসব এলাকায় করোনা আক্রান্ত বেশি সেসব দেশের লোকদের দেশে আসা বন্ধ, একমাত্র ইংল্যান্ড ছাড়া।

এদিকে দেশে আরও দুইজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের নমুনা সংগ্রহের মাধ্যমে পরীক্ষা করার পর এ দুজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ জনে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস-সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

ডা. ফ্লোরা জানান, নতুন করে যে দুজন আক্রান্ত হয়েছেন, তারা পুরুষ। একজন ইতালি থেকে আসা, আরেকজন যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছেন। একজন ছিলেন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে, আরেকজন একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি একজন আক্রান্তের সংস্পর্শে থেকে সংক্রমিত হয়েছেন। দেশে এখন মোট ১৬ জন আইসোলেশনে আছেন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪৩ জন।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ১৭ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার।

চীনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস বিশ্বের ১৬২টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বিশ্বব্যাপী ৭ হাজার ১৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভিন্ন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৫০। অপরদিকে, হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৯ হাজার ৮৮১ জন।