প্রচ্ছদ সারাদেশ মানিকগঞ্জে পৃথক ঘটনায় তিন যুবকের লাশ উদ্ধার

মানিকগঞ্জে পৃথক ঘটনায় তিন যুবকের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, মানিকগঞ্জ :

মানিকগঞ্জের সদর ও দৌলতপুর উপজেলা থেকে তিন যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পারিবারিক কলহের জেরে গলায় ফাঁস নিয়ে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার (২৮ আগস্ট) সকালে পৃথক স্থান থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলার ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

নিহতরা হলেন- মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার জাগীর ইউনিয়নের নতুন বাইচাইল গ্রামের আব্দুল মোতালেব হোসেনের ছেলে জাহিদ হোসেন (২৬), সদরের দিঘী ইউনিয়নের ছোট ভাটবাউর গ্রামের মজনু মিয়ার ছেলে রাকিব হোসেন (১৮) ও জেলার দৌলতপুর উপজেলার চকমিরপুর ইউনিয়নের চক-হরিচরন গ্রামের গোলাপ হোসেনের ছেলে শিশির হোসেন (২০)।

পুলিশ ও গ্রামবাসীর সূত্রে জানা গেছে, রোববার (২৭ আগস্ট) দিবাগত রাতে নিজ ঘর থেকেই জাহিদ হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করে গ্রামবাসী।

গ্রামবাসীরা জানান, জাহিদের এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই মেয়েকে জাহিদ বিয়ে করবে বলে পরিবারে সদস্যদের জানায়। কিন্তু তার পরিবার সম্পর্ক মেনে নেয় না। সে জন্য জাহিদ প্রেমিকাকে প্রায় এক বছর আগে বিয়ে করে। বিষয়টি তার পরিবারকে জানায় এবং তার বউকে বাড়িতে আনার জন্য বলে। কিন্তু তার বাবা এই বিয়ে মেনে নেয়নি। এর জন্য জাহিদের সঙ্গে তার বাবার মাঝে মাঝেই ঝগড়া হতো।

গ্রামবাসীরা আরও বলেন, জাহিদের মাথার পেছন থেকে রক্তখরণ দেখা গেছে বলে জানান।

জাহিদ হোসেন বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় পৌর সুপার মার্কেটের একটি দোকনে বিক্রয়কর্মী ছিলেন।

তবে জাহিদের বাবা এই বিষয় অস্বীকার করে বলেন, জাহিদ রাতে কোনো এক সময় আত্মহত্যা করেছে। এবং ঝুলন্ত জাহিদকে নামানোর সময় খাটের সঙ্গে বাড়ি খেয়ে তার মাথা ফেটে যায়।

এই বিষয়ে জাগীর ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবুল হোসেন জানান, বাবার হাতে ছেলে খুন হয়েছে বলে এলাকাবাসী দাবী করলেও পরিবারের সদস্যরা বলছেন আত্মহত্যা করেছে জাহিদ।

এদিকে সদর উপজেলার দিঘি ইউনিয়নের ছোট ভাটবাউর গ্রামের মজনু মিয়ার ছেলে রাকিব হোসেনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, পারিবারিক কলহের জেরে রকিব বাড়ির পেছনের গাবগাছে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সকালে স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ রাকিবের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। রাকিব হোসেন পেশায় একজন পিকআপ চালক ছিলেন।

অপরদিকে জেলার দৌলতপুর উপজেলা চকমিরপুর ইউনিয়নের চক-হরিচরণ গ্রামের গোলাপ হোসেনের ছেলে শিশির হোসেনের ঝুলন্ত লাশ নিজ ঘর থেকে উদ্ধার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে শিশির আত্মহত্যা করে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন। স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। শিশির হোসেন মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম মোল্যা জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পারিবারিক কলহের জেরে এই হত্যার ঘটনা হতে পারে বলে জানান তিনি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার জানান, সদরের দুটি লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে আনা হয়েছে। এ ব্যপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।