খুলনা বিভাগ

মাঠ কাঁপানো মাশরাফি এবার নড়াইলের ভোটের মাঠ কাঁপাবে

SHARE

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি: নড়াইলে জল্পনা-কল্পনা শেষ। এখন আর উদ্বেগ নেই, উৎকন্ঠা নেই। গুঞ্জনের সুর এতোদিনে সত্যিই হলো। মাঠ কাঁপানো মাশরাফি এবার ভোটের মাঠে। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ খ্যাত ওয়ানডে ক্রিকেটের সফল অধিনায়ক, অহংকারী তারুন্যের প্রতিক মাশরাফি বিন মোর্তজা।

তাঁর খেলোয়াড়ি জীবনের সাফল্য, নেতৃত্ব গুন ও ব্যক্তি মানুষ হিসেবে বিপুল জনপ্রিয়তা বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়কের নামটি তুলে দিয়েছে রাজনীতির ময়দানে। খেলায় থেকেই রাজনীতিতে মাশরাফি। তাই, ভোটের মাঠে মাশরাফিকে পেয়ে নড়াইলবাসী দারুন খুশি। আনন্দের জোয়ারে ভাসছে নড়াইল-২ আসন। চলছে সভা, মিছিল ও মিটিং। সংসদীয় আসন জুড়ে মিষ্টি আর ফল বিতরণের হিড়িক পড়েছে। মাশরাফির মনোনয়নে সবচেয়ে বেশী খুশি নতুন ভোটাররা।

চিত্রা পাড়ের নড়াইল শহরে তাঁর বাড়ি। শহরবাসীর কাছে তিনি ‘কৌশিক’ নামে সমধিক পরিচিত। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার পর মাশরাফি ভর্তি হন জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ততার কারণে পড়াশোনা শেষ করতে পারেন নাই।

২০০১ সালের ৮ই নভেম্বর টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক তাঁর । গত ১৭ বছরে অমিত প্রতিভা, সময়োপযোগী বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্ত, অদম্য সাহস আর সাফল্য দিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন উজ্জ্বল নক্ষত্র হিসেবে। দেশের সবচেয়ে সফল এই অধিনায়কের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রথম বারের মতো উঠেছে বিশ্ব কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমি ফাইনালে। দু‘বার খেলেছে এশিয়া কাপের ফাইনালে। মাশরাফি শুধু সফল অধিনায়কই নন, তিনি ওয়ান্ডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী(২৫০টি)। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছেন এই অল-রাউন্ডার ক্রিকেটার অধিনায়ক মাশরাফি।

নিজের এলাকায় জনসেবা মূলক কর্মকান্ডে বেশ কয়েক বছর ধরেই নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন মাশরাফি। গড়ে তুলেছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’। এই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানও তিনি নিজেই। সাধারন,দুস্থ ও অসহায় মানুষদের আর্থিক সহায়তা, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, আইসিটি, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম, পরিবেশ, পর্যটনসহ বিভিন্ন বিষয়ে সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে প্রশংসিত হয়েছে এই ফাউন্ডেশন।

মাশরাফি কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য নন। নেতৃত্ব গুণ আর বিশাল জনপ্রিয়তার কারণে তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন লাভ করেছেন- এমনটাই মনে করেন তার ভক্ত ও সমর্থকরা। কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যম ও ফেসবুকে মাশরাফির র্প্রার্থীতা নিয়ে বিভিন্ন ধরণের লেখালেখি এবং মন্তব্য করায় সবার মাঝে এ বিষয়ে কৌতুহল সৃষ্টি হয়। এখন সব কিছু ছাপিয়ে ক্রিকেট মাঠের ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ এর চেয়ে আলোচনার তুঙ্গে আছেন ‘রাজনীতি মাঠের’ মাশরাফি বিন মর্তুজা। মাশরাফির পক্ষে নড়াইল-লোহাগড়ায় নির্বাচনী কাজ শুরু করেছেন ভক্তসহ দলীয় নেতাকর্মীরা। গতকাল শুক্রবার লোহাগড়ার বিভিন্ন বাণিজ্যিক পয়েন্টে তাঁর সমর্থকরা নৌকায় ভোট চেয়ে লিফলেট বিতরন করেছেন।

নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ নড়াইল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মির্জা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘নড়াইলে দলমত নির্বিশেষে মাশরাফি সব মহলে জনপ্রিয় ও গ্রহনযোগ্য ব্যক্তিত্ব। আসন্ন নির্বাচনে মাশরাফি নড়াইল-২ আসন থেকে হেসে খেলেই বিজয়ী হবে’।

উল্লেখ্য, গত ১১ নভেম্বর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার আগে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাৎ করে দোয়া নিতে যান মাশরাফি। পরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে গিয়ে মাশরাফি নিজের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মাশরাফি বলেছিলেন, নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে নড়াইলকে সুন্দর ও আধুনিক করে সাজাতে চাই।’ গত ২০ নভেম্বর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নড়াইল-২ আসনে মাশরাফির মনোনয়নের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নড়াইল পৌরসভাসহ সদরের ৬টি ইউনিয়ন ও লোহাগড়ার ১টি পৌরসভাসহ ১২টি ইউনিয়ন নিয়ে নড়াইল-২ আসন গঠিত। এখানে ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ১৭ হাজার ৫১১ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ১ লাখ ৬০ হাজার ৬২৪ এবং পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৬ হাজার ৮৮৭ জন।