আজকের সেরা সংবাদ

বিএসএমএমইউ’তে কাদেরকে দেখলেন সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকরা

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা পর্যাবেক্ষণ করেছেন সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা।  আজ রোববার সন্ধ্যায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্স করে হাসপাতালের তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল ঢাকায় পৌঁছান। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে (বিএসএমএমইউ) ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে যান তারা।চিকিৎসকদের মধ্যে একজন ভারতীয় ও বাকি দুজন সিঙ্গাপুরের।তবে তাদের নাম এখনো জানা যায়নি।এদিকে সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিএসএমএমইউ এর দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা নিয়ে কিছু বলাও যাবে না। অসুস্থ হওয়ার পর কাদের বিএসএমএমইউ এ চিকিৎসা নিচ্ছেন।বিএসএমএমইউর কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলী আহসান বলেন, এনজিওগ্রাম করে দেখা যায় যে ওবায়দুল কাদেরের তিনটি আর্টারি ব্লক হয়ে গেছে। তার আগে থেকে থাকা ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত ছিল। এর মধ্যে খুব বেশি পরিমাণ ব্লক যেটা ছিল যেটাকে এলইডি বলে সেটিকে খুলে দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। খুলে দেওয়ার পর তিনি সত্যিই দুই ঘণ্টা ভালো ছিলেন। এরপর তার রক্তচাপ আবার কমে যায়। ইলেকট্রোলাইট ইমব্যালেন্স হয়। এরপর নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। সবার সঙ্গে পরামর্শ করে তার প্রেসার নিয়ন্ত্রণের যন্ত্র লাগানো হয়।অধ্যাপক আলী আহসান বলেন, তিনি এখন চোখ খুলছেন। কথা বলছেন। কিন্তু ক্রিটিক্যাল স্টেজই (জটিল অবস্থা) এখনো আছে।দেশের বাইরে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার দরকার হবে কি না? সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে আলী আহসান বলেন, এ অবস্থায় পাঠালে তার স্থিতিশীল পরিস্থিতি অস্থিতিশীল হয়ে যেতে পারে। তবে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসক দল যদি মনে করেন বিদেশ নেয়া প্রয়োজন। তাহলে তাই করা হবে।আজ রোববার সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে বুকে ব্যথা অনুভব করলে সেতুমন্ত্রীকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।