হেড লাইন

প্যারোলে মুক্তির আবেদনে আন্তরিক থাকবেন প্রধানমন্ত্রী

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্যারোলে মুক্তি চেয়ে আবেদন করলে ‘বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনার জন্য’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘আন্তরিক থাকবেন’ বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর ‘মানবিকতা’ চেয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ফোন করার পর দিন এ কথা বললেন সরকারের এই গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী।

শনিবার ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত ভবন উদ্বোধন ও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

রাষ্ট্র খালেদা জিয়ার বিষয়ে আন্তরিক জানিয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া জেলখানায় আছেন, উনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। সংবিধানের দৃষ্টিতে সব নাগরিক সমান সুযোগ পাবেন, বেগম জিয়া যেহেতু একটি দলের প্রধান এবং উনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী তার ব্যাপারে রাষ্ট্র অত্যন্ত আন্তরিক।

আইনের বিধির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া প্যারোলে মুক্তির আবেদন করলে রাষ্ট্রের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীও আন্তরিক জানিয়ে তিনি বলেন, যেটুকু সুযোগ আছে, সীমাবদ্ধতা এবং সুযোগ সবই আমার মনে হয় রাখবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যেক নাগরিকের জন্য যেমনি আন্তরিক, খালেদা জিয়ার বেলায়ও সেখানে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করার জন্য আন্তরিক থাকবেন। কিন্তু সংবিধান ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাপনার যত সুযোগ আছে সেই সুযোগের বেশি তো আর দেয়া যায় না।

প্রসঙ্গত দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছর দণ্ডিত হয়ে কারাবন্দি খালেদা জিয়া। ৮ ফেব্রুয়ারি তার কারাজীবনের দুই বছর পূর্ণ হলো। দীর্ঘদিন কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়া বিএনপি চেয়ারপারসনকে বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বছর খানেক ধরে। গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার স্বজনরা দেখা করেন। বেরিয়ে এসে তাকে বিদেশ নিয়ে যেতে প্রয়োজনে প্যারোলে মুক্তির জন্য আবেদন করা হবে বলেও জানান তারা।