আজকের সেরা সংবাদ

পদ্মার পানি বাড়ছে অস্বাভাবিকভাবে, আগাম বন্যার আশঙ্কা

শেয়ার করুন

ভারত-বাংলাদেশ গঙ্গাচুক্তির ২২ বছর পূর্তি হলেও   চুক্তি অনুযায়ী ন্যায্য হিস্যার পানি পায়নি পদ্মা নদী। যার ফলে প্রায় সময়ই শুষ্ক ও বুকভরা বালু নিয়ে থাকতে হয় পদ্মার।

কিন্তু এবারই প্রথম এই সময়ে হঠাৎ করে অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে পদ্মা নদীর পানি। অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি আগাম বন্যার আভাস কিনা ভাবছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা।পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, দেশের উত্তর ও পশ্চিম জনপদকে মরুভূমির হাত থেকে রক্ষার জন্যই ১৯৯৬ সালে তৎকালীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেব গৌড়া ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩০ বছর মেয়াদের একটি গঙ্গা পানি চুক্তি করেন।

চুক্তির শর্ত ছিল বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকে ৩১ মে পর্যন্ত ভারত বাংলাদেশকে ৩৫ হাজার কিউসেক পানি দিবে। কিন্তু চুক্তির পর কোনও সময়েই পদ্মা তার ন্যায্য হিস্যা পায়নি। ফলে পানির অভাবে উত্তরাঞ্চলের কৃষকেরা তাদের কৃষিকাজ করতে পারেনি।

কিন্তু  এবার হঠাৎ করেই পদ্মার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এ এলাকার কৃষক, শ্রমিক ও খেটে খাওয়া মানুষের মনে ভয় দেখা দিয়েছে। যেন আগাম বন্যা না হয়। পদ্মার ঈশ্বরদী পাকশী ব্রিজ পয়েন্টে পানির উচ্চতা ৬.৫৮ মিটার এবং পানির পরিমাণ ৫০ থেকে ৮০ হাজার কিউসেক উঠানামা করছে।

পাকশী এলাকার বাসিন্দা মিজানুর রহমান জানান, দীর্ঘ ৩০ বছর তিনি এ নদীতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। এবারই প্রথম দেখছি অসময়ে পানি বৃদ্ধি। তার ধারণা উজানে অতিবৃষ্টির কারণেই হঠাৎ পদ্মার পানি বাড়ছে।

পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক কেএম জহুরুল হক পানি বৃদ্ধির বিষয়ে বলেন, তিনি কখনই এই সময়ে পদ্মায় এরকম পানি বৃদ্ধি দেখেননি। এ সময় পানির অভাবে কৃষক চাষাবাদ করতে পারতো না। ভারতের কাছে বারবার তাগাদা দেওয়া হলেও চুক্তি মোতাবেক পানি দেয়নি। কিন্তু এবার হঠাৎ করেই পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তারা আগাম বন্যার আশঙ্কা করছেন।