এক্সক্লুসিভ সংবাদ

নির্ধারিত সময়ের আগে বা পরে জাকাত আদায়ের বিধান

শেয়ার করুন

প্রশ্ন : বর্তমানে করোনার কারণে মানুষের মাঝে হাহাকার চলছে। সামর্থ্য অনুযায়ী মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে। কিন্তু সাধারণ অনুদানের সুযোগ এখন নেই। তাই অগ্রিম জাকাত দিলে কি আদায় হবে? অর্থাৎ আমার ওপর জাকাত ফরজ হবে আরো দুই মাস পর। কিন্তু অবস্থা বিবেচনায় এখনই ওই জাকাত দিতে চাচ্ছি। এতে আমার জাকাত আদায় হবে? আবার কেউ যদি জাকাত আদায়ে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বিলম্ব করে তাহলে তাতে কোনো সমস্যা আছে?

উত্তর : ইসলামের অন্যতম গুরুত্বপুর্ণ একটি স্তম্ভ হচ্ছে জাকাত। যদি কারো কাছে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ও ঋণ থেকে মুক্ত জাকাতযোগ্য নেসাব পরিমান সম্পদ থাকে এবং এ সম্পদের ওপর পূর্ণ এক বছর অতিবাহিত হয় তাহলে ওই সম্পদ থেকে শতকরা আড়াই ভাগ জাকাত দেয়া ফরজ। অর্থাৎ জাকাত ফরজ হয়, নেসাব পরিমান সম্পদের ওপর পূর্ণ এক বছর অতিবাহিত হওয়ার দ্বারা। বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বে কারো ওপর জাকাত আদায় করা ফরজ হয় না। (রদ্দুল মুহতার, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-২২১, মাকতাবাতুল আযহার)।

অগ্রিম জাকাত দেয়ার বিধান :

তবে কোনো ব্যক্তি, তার সম্পদের ওপর এক বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বেই জাকাত আদায় করতে চাইলে সুযোগ আছে। তবে কোনো কারণে বছর পূর্ণ হওয়ার আগেই জাকাতের মাল নষ্ট হয়ে গেলে পূর্বে আদায়কৃত মাল জাকাত হিসেবে ধর্তব্য হবে না। বরং নফল দান হিসেবে গণ্য হবে। (দরসে তিরমিজি, খণ্ড-২, পৃষ্ঠা-৫০৮, ফতোয়ায়ে হিন্দিয়া, খণ্ড-১, পৃষ্ঠা-১৯৪, কিফায়াতুল মুফতি, খণ্ড-৪, পৃষ্ঠা-২৯৮, কিতাবুন নাওয়াজেল, খণ্ড-৬, পৃষ্ঠা-৫৯৮)।

নির্ধারিত সময়ে জাকাত আদায় না করার বিধান :

নেসাব পরিমান সম্পদের ওপর এক বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও জাকাত আদায় করতে বিলম্ব করলে সম্পদের মালিক গুনাহগার হবে। তবে কোনো ওজরের কারণে যদি বিলম্ব হয় তাহলে সমস্যা নেই। (রদ্দুল মুহতার, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-২২৮, কিতাবুন নাওয়াজেল, খণ্ড-৬, পৃষ্ঠা-৫৪৬, ফতোয়ায়ে হক্কানিয়াহ, খণ্ড-৩, পৃষ্ঠা-৪৮৫)।

বিগত বছরগুলোর জাকাত আদায়ের বিধান :

কারো ওপর বিগত বছরগুলোর জাকাত বাকি থাকলে সেগুলোর জাকাতও আদায় করতে হবে। তাওবা ও ইস্তিগফারের দ্বারা জাকাত মাফ হয়ে যায় না। তাই হিসাব করে পূর্বের বছরগুলোর জাকাতও আদায় করতে হবে। (ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া, খণ্ড-১৪, পৃষ্ঠা-১৫২, আহসানুল ফাতাওয়া, খণ্ড-৪, পৃষ্ঠা-২৬৪, আপকে মাসায়েল, খণ্ড-৫, পৃষ্ঠা-১২৯)।