আজকের সেরা সংবাদ

ঘূর্ণিঝড় প্রবণ এলাকায় ডাক্তারদের ছুটি বাতিল, অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত

SHARE

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ উপকূলীয় জেলাগুলোতে শনিবারের মধ্যে যেকোন সময় আঘাত হানার সম্ভবনা রয়েছে। দুর্যোগ কবলিত উপকূলীয় জেলা সমূহের স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকল পর্যায়ের চিকিৎসক ও অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্রাথমিক চিকিৎসা সরঞ্জামাদিসহ অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখতেও প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. আমিরুজ্জামান সই করা এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ উপকূলীয় জেলা সমূহে শনিবারের মধ্যে যেকোন সময় আঘাত হানার সম্ভবনা রয়েছে। দুর্যোগ চলাকালীন উপকূলীয় জেলা সমূহের স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকল পর্যায়ের চিকিৎসক ও অন্যান্য কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের ছুটি বাতিল সহ কতিপয় নির্দেশনা অনুসরণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

নির্দেশনার মধ্যে রয়েছে-

১. স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোলরুমের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রাখতে হবে। (টেলিফোন নাম্বার ০২-৯৮৫৫৯৩৩, হটলাইন ০১৭৫৯১১৪৪৮৮।

২. উপকুলীয় এলাকার আওতায় পরিচালক(স্বাস্থ্য) এর কার্যালয়, সিভিল সার্জন কার্যালয়, স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয়ে কন্টোলরুম খুলতে হবে।

৩. দুযোর্গ পরিস্থিতি মোকাবেলায় কমিউনিটি ক্লিনিক সমূহকে একযোগে কাজ করতে হবে।

৪. প্রাথমিক চিকিৎসার সরাঞ্জামাদিসহ প্রয়োজনীয় সংখ্যক মেডিকেল টিম গঠন করে সার্বক্ষনিকভাবে প্রস্তুত রাখতে হবে।

৫. স্থানীয় প্রশাসনের সাথে ও দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা বিভাগের গঠিত কন্ট্রোলরুমের সাথে সার্বক্ষনিকভাবে যোগাযোগ ও সমন্বয় করে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে।

৬. উপকুলীয় প্রতিটি স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঔষধ মজুদ রাখতে হবে। প্রয়োজনে তাৎক্ষনিক সরবরাহ করতে হবে।

৭. প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্রাথমিক চিকিৎসা সরঞ্জামাদিসহ এ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখতে হবে।

৮. আহত রুগীদের চিকিৎসা ও সেবা নিশ্চিত করতে হবে এবং প্রয়োজনে জেলা সদরে অথবা ঢাকায় প্রেরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৯. দুর্যোগপূর্ণ এলাকায় মাইকিং করে সর্তকবার্তা পৌঁছাতে হবে।