খুলনা বিভাগ

আবরার হ’ত্যায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে যশোরে মানববন্ধন

মো: মনোয়ার হোসেন, যশোর জেলা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হ’ত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে যশোরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সোমবার সকালে প্রেসক্লাবের সামনে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ও বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী জেলার শাখার উদ্যোগে পৃথক মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), যশোরের আয়োজনে সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সনাক যশোর’র সভাপতি অধ্যাপক সুকুমার দাস। বক্তব্য দেন প্রবীণ শিক্ষক তারাপদ দাস, সনাক সদস্য প্রফেসর ড. মুস্তাফিজুর রহমান, অ্যাড. মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, তির্যক যশোরের সাধারণ সম্পাদক দীপংকর দাস রতন, সনাক সদস্য অ্যাড. প্রশান্ত দেবনাথ, সনাতন ধর্মসংঘ যশোরের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অখিল চক্রবর্তী, স্বজন সদস্য ইলিয়াস হোসেন, ইয়েস সদস্য সাবরিনা আফরোজ মেঘলা ও দেলোয়ার হোসেন শিপন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সনাক সদস্য সাইফুজ্জামান মজু, আব্দুল মালেক, পাভেল চৌধুরী, অ্যাড. সৈয়দা মাসুমা বেগম, মাসুদুল আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার এ. এইচ. এম. আনিসুজ্জামান।

অপরদিকে, একইস্থানে বেলা ১১টার দিকে বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী যশোর জেলা শাখার মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু, সহ-সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস, রাজনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক শুভ্র বিশ্বাস, অধ্যাপক ইসরারুল হক, ছাত্রমৈত্রী কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, ছাত্রমৈত্রী জেলা শাখার সভাপতি শ্যামল শর্মা, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শাখাওয়াত খান, এমএম কলেজ ছাত্রমৈত্রীর আহবায়ক অরূপ মিত্র প্রমুখ।

দু’টি মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আবরার ফাহাদ হ’ত্যাকান্ড স্বাধীন মতপ্রকাশের বিরুদ্ধে এক অশনিসংকেত। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সামান্য একটি মতপ্রকাশের কারণে সরকারি দলের ছাত্রসংগঠনের পরিচয়ধারী কিছু উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র কর্তৃক বুয়েট’র মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে পিটিয়ে মেরে ফেলা হলো। ছাত্ররাজনীতি ছাত্রদের কল্যাণের জন্য, শিক্ষা সংশ্লিষ্ট দাবিদাওয়া আদায়ে সংগ্রাম করার জন্য। মতের অমিল হলেই কোন ছাত্রকে পিটিয়ে মেরে ফেলা ছাত্ররাজনীতি নয়। এহেন ছাত্ররাজনীতি পরিহার করতে হবে। ছাত্ররাজনীতির প্রয়োজন আছে তবে দলীয় লেজুড়বৃত্তির ছাত্ররাজনীতি নয়। বক্তারা অবিলম্বে আবরার ফাহাদ হ’ত্যাকান্ডে জড়িতদের বিচারের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান। পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত করারও আহ্বান জানান বক্তারা।