জাতীয়

আজহারীর পক্ষে এবার সংসদে সরব এমপি বাবলু

SHARE

তরুণ ইসলামিক বক্তা মিজানুর রহমান আজহারীকে নিয়ে এবার সরব হয়েছেন বগুড়া-৭ আসনের স্বতন্ত্র এমপি রেজাউল করিম বাবলু। সম্প্রতি সংসদে দেয়া বক্তব্যে তিনি জনপ্রিয় এ বক্তার পক্ষ নিয়ে বলেন, তিনি কয়েকটি কোরানের আয়াত নিয়ে কথা বলেন, তার পেছনে আমরা সবাই লেগেছি। এটা আজহারীর বিরুদ্ধে নয় বরং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত বলেও মনে করেন এই সংসদ সদস্য।

এমপি বাবুল বলেন, সম্প্রতি কয়েক দিন হলো আমাদের একজন ইসলামি বক্তা আজহারীকে নিয়ে কথা ওঠছে। আজহারী কী রাজনীতি জানেন, তার বয়স কত। নট লেস দ্যান টুয়েন্টি ফাইভ ইয়ারস। সে কী রাজনীতি বোঝে, আজহারী কী রাজনীতি বোঝে যে, তাকে নিয়ে আমরা বড় বড় লোকগুলো টানাটানি করি। তাকে আরও ওপরের দিকে তুলে দিই।

তিনি বলেন, আহজারী কয়েকটা কোরআনের আয়াত নিয়ে কথা বলেন। তার পেছনে আমরা সবাই লেগেছি।

মাননীয় স্পিকার, এটি আজহারীর সঙ্গে লাগা নয়, এটি করে আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা হয়েছে। কিছু বিদেশি গোয়েন্দা, বিদেশি এজেন্ডা বাস্তবায়নকারী স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি আমাদের এই ৯৫ শতাংশ মুসলিম দেশে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনে আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সুনাম ক্ষুণœ করছে।

রেজাউল করিম বাবলু বলেন, মাননীয় স্পিকার, আমরা এই জাতীয় সংসদের অনেক সময় অবান্তর কথা বলে থাকি। কেউ সহনীয় পর্যায়ে ঘুষ খেতে বলি, কেউ গ্রিল ধরে ১০ তলা ভবন ফেলে দেয়।

এই মুজিববর্ষে, ৫০ বছর পরও আমরা রাজাকার আর মুক্তিযোদ্ধার তালিকার ফয়সালা করতে পারিনি। সেখানে কে দু’একটা কথা বলেন, কোরআনের আয়াত বলেন, হাদিস বলেন– আর আমরা ওঠেপড়ে লেগেছি তার পেছনে।

তিনি আরও বলেন, যারা ধর্মীয় বিভেদ সৃষ্টি করে অতিউৎসাহী হয়ে, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে, তাদের চিহ্নিত করা হোক। আজ তারা এ বিষয়ে এত অতিউৎসাহী কেন?

এটি মুসলিম কান্ট্রি। ইসলামের সবচেয়ে বড় শত্রু ইহুদি-নাসারা। খ্রিস্টান-ইহুদিরা তাদের এজেন্ডা দিয়ে তাদের বাস্তবায়নকারী লোক ও গুপ্তচরগুলোকে দিয়ে আমাদের নৈতিক চরিত্র অধপতন করে।