বিনোদন

অবরুদ্ধ ভূস্বর্গের ছবিতে পুলিৎজার : ভারতে নতুন রাজনৈতিক ঝড়

শেয়ার করুন

বিডি রিপোর্ট টোয়েন্টিফোর ডটকম :

একটি ছবি হাজার শব্দের সমান— সাংবাদিকতায় এটি বহু পুরনো ও চিরসত্য প্রবাদ। স্তব্ধ ভূস্বর্গের ছবি দুনিয়ার সামনে তুলে ধরে ফিচার ফটোগ্রাফি বিভাগে পুলিৎজার পুরস্কার জিতলেন জম্মু-কাশ্মিরের তিন চিত্র সাংবাদিক দার ইয়াসিন, মুখতার খান এবং ছান্নি আনন্দ। তারা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)-এ কর্মরত।

তিন চিত্র সাংবাদিকের পুলিৎজার-জয় নিয়ে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে। কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গাঁধীর টুইট, ‘‘জম্মু-কাশ্মীরের জনজীবনের প্রকৃত ছবি তুলে পুলিৎজার পুরস্কার পাওয়ার জন্য দার ইয়াসিন, মুখতার খান এবং ছান্নি আনন্দকে অভিনন্দন।’’ রাহুলের এই টুইটকে হাতিয়ার করে বিজেপি। দলের মুখপাত্র সম্বিত পাত্রের অভিযোগ, পুলিৎজার পুরস্কারের ওয়েবসাইটের ফিচার ফটোগ্রাফি বিভাগে লেখা রয়েছে, কাশ্মির ভারতের অংশ নয়। জোর করে কাশ্মির দখলে রেখেছে ভারত। তার দাবি, ‘‘ওই তিন পুলিৎজার জয়ীকে রাহুল গান্ধীজি অভিনন্দন জানাচ্ছেন। সনিয়া গান্ধীজি আজ দেশকে জানান, কাশ্মির নিয়ে কংগ্রেসের অবস্থান কী? কারণ, রাহুলজি মনে করেন, ওয়েবসাইটে যা লেখা হয়েছে তা সত্যি।’’

গত অগস্টে জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর থেকে উপত্যকায় কার্ফু, মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ থাকায়, সেখানকার দমবন্ধ করা পরিস্থিতি তুলে ধরা ছিল খুবই কঠিন। কিন্তু ভূস্বর্গে কী হচ্ছে তা বিশ্বকে জানাতে হাল ছাড়েননি ওই তিন ভূমিপুত্র। সেই সময়ের কাশ্মিরের ছবি তুলবেন বলে তারা অশান্ত এলাকাগুলোতে অচেনা কারো বাড়িতে গা ঢাকা দিয়েছিলেন। ইয়াসিন, মুখতার এবং ছান্নিরা কখনো লাফিয়ে পার হয়েছেন রোডব্লক।

বিক্ষোভ-পুলিশ-আধা সামরিক বাহিনীর অভিযানের ছবি তুলতে কখনো ক্যামেরা লুকিয়েছেন আনাজের ব্যাগে। কাশ্মিরিদের দৈনন্দিন জীবন, নিরাপত্তা বাহিনীর নজরদারি ধরা পড়েছে লেন্সে। দিনের শেষে ইয়াসিনেরা ছুটেছেন বিমানবন্দরে। সেখানে কাশ্মিরি যাত্রীদের বুঝিয়ে ফটো ফাইলগুলো পাঠিয়েছেন নয়াদিল্লিতে তাদের দফতরে।

সোমবার নিজের বাড়ি থেকে ইউটিউব লাইভস্ট্রিমে পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন পুলিৎজার বোর্ডের প্রধান ডানা ক্যানেডি।

পুলিৎজার জয়ে খুবই আপ্লুত শ্রীনগরের বাসিন্দা মুখতার খান। তিনি বলেন, ‘‘এখনো বিশ্বাস করতে পারছি না। আমি ও আমার সহকর্মীরা এই পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হব আশা করিনি।’’ আর এক পুলিৎজার জয়ী ইয়াসিন বলেছেন, ‘‘এতো বড় সম্মান পাব, ভাবিনি।’’ জম্মুর বাসিন্দা ছান্নি অবশ্য হোয়াটসঅ্যাপে জানিয়েছেন, ‘যারা পাশে থাকার জন্য এই পুরস্কার জয়, তাদের সকলকে ধন্যবাদ।’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা