খোলামেলা পোশাকে আপত্তি ছিল প্রিয়ঙ্কার! এরপর যা হল…

SHARE

বডিউল অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কার প্রথম জীবন টা খুব মসৃণ ছিল না।  পরিচালকের চাহিদা মেটাতে না পারায় নিজেকে আরো কঠিন করে তুলে আনলেন এই অভিনেত্রী।  জানালেন তার জীবনের ঘটে যাওয়া বেশ গুরুত্বপুর্ণ কিছু তথ্য তার মা।

কেরিয়ারের শুরুতে বিভিন্ন রকমের প্রস্তাব পেয়েছিলিন।  শেষ পর্যন্ত কি কমপ্রোমাইজ করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা! মেয়ে বলিউড থেকে হলিউডে পাড়ি দিয়েছেন।  আর তার মধ্যেই প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মা মধু চোপড়া মেয়ের কেরিয়ারের গোড়ার কথা নিয়ে মুখ খুললেন।

শুক্রবার হায়দরাবাদের ২০তম আন্তর্জাতিক শিশু চলচিত্র উৎসবে এমনই এমনই জানিয়েছেন মধু চোপড়া।  সেখানেই তিনি জানান, কেরিয়ারের শুরুটা মোটেই মসৃণ ছিল না প্রিয়াঙ্কা।

মাত্র ১৭ বছর বয়সে গ্ল্যামার ইন্ডাস্ট্রিতে পদার্পণ করেন প্রিয়াঙ্কা।  বহুবার বিভিন্ন রকমের প্রস্তাবের সম্মুখীন হতে হয়েছে।  কিন্তু নিজের মূল্যবোধ থেকে কখনই সরে যাননি তিনি।  আর তাই প্রায় ১০টি ছবি হারিয়েছেন।  জানান প্রিয়াঙ্কার মা।  জীবনে উন্নতির দিকে এগিয়ে যেতে কখনই নিজের মূল্যবোধ বিসর্জন দেওয়া উচিত নয়।

মধুদেবী বলেন, ‘‘১৭ বছর বয়সে কেরিয়ার শুরু করেন প্রিয়ঙ্কা।  আমি ওর সঙ্গে সব জায়গায় যেতাম।  একদিন এক ভদ্রলোক ওকে বলেন, —‘আমি যখন স্ক্রিপট পড়ে শোনাব, তখন কি তোমার মা বাইরে বসবেন?’ তখন প্রিয়াঙ্কা উত্তরে বলেন— ‘এই ছবির গল্প যদি আমার মা শুনতেই না পারেন, তা হলে এই ছবি আমি করবোনা। ’ এই বলে বেরিয়ে যায় সে।  ছবিটি কিন্তু খুব ভাল ছিল। ’’

এরকমই আরও একটি ঘটনার কথা বলেন মধু চোপড়া।  তিনি জানান, আরও একবার একটি ছবিতে পরিচালক প্রিয়াঙ্কাকে একটু বেশি খোলামেলা পোশাক পরাতে চেয়েছিলেন।

সেই পরিচালকের বক্তব্য ছিল, ‘‘ক্যামেরার সামনে যদি এই পোশাকে নিজেকে সুন্দর ভাবে মেলে না ধরতে না পারেন, তা হলে মিস ইন্ডিয়াকে সিনেমাতে নিয়ে কী লাভ?’’ কিন্তু প্রিয়াঙ্কা এই পোশাক পরতে  রাজি হননি।  আর তাতে পরিচালক ক্ষুব্ধ হন।  সেই ছবিতে রাজি না হওয়ায় ওই পরিচালকের ১০টি ছবি হারান পিগি চপস।  নাম না করলেও, তিনি প্রথম সারির পরিচালক ছিলেন বলে জানান মধু চোপড়া।

১০টি ছবি হারিয়ে কিন্তু মোটেই ভেঙে পড়েননি প্রিয়াঙ্কা।  বরং নিজের লক্ষ্যে স্থির থেকে এগিয়ে গিয়েছেন।