শিশু নির্যাতন : হাসপাতালে দেখতে যান গাইবান্ধা পুলিশ সুপার

SHARE

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা ঃ গত ৫ নভেম্বর শনিবার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা সর্বানন্দ ইউনিয়নের রামভদ্র (কদমতলা) গ্রামের মৃত আব্দুর আউয়ালের শিশু পুত্র নয়ন (১২) কে একই গ্রামের মৃত আব্দুল বাতেন হোসেনের ছেলে কবির হোসেনের মুরগীর খামারে আড়াই হাজার টাকা বেতনে চাকরি করত বলে কবির হোসেনের বড় ভাই বেলাল জানান।
বেলালের বাড়িতে ৬ মাস কাজ করার পর তার ছোট ভাই কবিরের বাড়িতে কাজে যোগ দেয়। ১০ হাজার টাকা চুরি করার সন্দেহে নয়নকে মুরগীর খামারের পিছনে গাছের সঙ্গে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় কোটিপতি আলহাজ¦ ফরিদ উদ্দিনের ছেলে সাবেক মেম্বার জহুরুল ইসলাম, বাবলু চন্দ্রের পুত্র রিপন চন্দ্র ও মৃত বাতেন হোসেনের পুত্র আজিজ ও কবিরসহ চারজন মিলে এই নৃশংস মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাটি ঘটায়।
এই ঘটনায় নয়নের মা নুরজাহান বেওয়া বাদী হয়ে কবির, আজিজ, রিপন চন্দ্র ও সাবেক মেম্বার জহুরুলকে ৩৪১,৩৪২, ৩২৩,৩২৪,৩০৭,৫০৬,১১৪ দঃবিঃ ধারায় মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং-৬, তাং-০৫/১১/২০১৭ইং।
গত মঙ্গলবার গাইবান্ধা পুলিশ সুপার মোঃ মাশরুকুর রহমান খালেক (বিপিএম), সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ অফিসার ইনচার্জ মুহাঃ আতিয়ার রহমান ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের গাইবান্ধা জেলা সভাপতি মোঃ আল শাহাদৎ জামান (জিকু) চিকিৎসাধীন নয়নকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখতে যান।
এ সময় পুলিশ সুপার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করেন।