আইডি কার্ডের পর আসছে ট্যাক্স পিন

SHARE

এবারে আয়কর মেলার বাড়তি আকর্ষণ করদাতাদের ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ড। এরপর করদাতা শনাক্তে ট্যাক্স পিন পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণাধীন জাতীয় রাজস্ব ভবনে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

প্রধান অতিথি অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে তিনি এ তথ্য জানান।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘২০১০ সালে প্রথম আয়কর মেলায় ৬০ হাজার ৫০০ ব্যক্তি আর সর্বশেষ ২০১৬ সালে আয়কর মেলায় সেবা নিয়েছেন ৯ লাখ ২৯ হাজার ব্যক্তি। এই যে সেবাগ্রহীতা বাড়ছে এটাকে আমার কাছে সবচেয়ে বড় অর্জন মনে হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘গত বছর ২ লাখ করদাতা রিটার্ন জমা দেওয়ার বিপরীতে ২ হাজার ১৩০ কোটি টাকা আয়কর দিয়েছেন। আমি আশা করি এবার ৩ হাজার কোটি টাকা ছাড়াবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যবসায়ী শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। মো. নজিবুর রহমান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

শেখ ফজলে ফাহিম আয়কর বিষয়ে স্কুলে পড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আমি বিদেশে পড়াশুনা করেছি। ক্লাস টেনের জেনেছি কীভাবে আয়কর দিতে হবে। আমার পাঠ্যবইয়ে সে বিষয় ছিল।’

নজিবুর রহমান বলেন, ‘আমরা এবার যে পরিবারের সবাই দীর্ঘদিন ধরে আয়কর দিচ্ছে তাদের পুরস্কার দিচ্ছি। আমরা তাদের কর বাহাদুর উপাধি দিচ্ছি। এবার আয়কর মেলার বাড়তি আকর্ষণ থাকবে করদাতাদের রিটার্ন দাখিলের সঙ্গে সঙ্গে ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ড ও স্টিকার প্রদান। এটি এনবিআরের নতুন উদ্ভাবন।’

অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর  কথা উল্লেখ করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘তিনি আমাকে পরামর্শ দিয়েছে করদাতাদের পিন নম্বর দেওয়ার। যে ট্যাক্স পিন দিয়ে তাদের শনাক্ত করা যাবে। আমরা এ পদ্ধতি চালু করব।’

তিনি বলেন, ‘শুরুতেই আমরা একটা ভিড় দেখতে পাচ্ছি। এটা প্রমাণ করে দেশের জনগণ আযকর দিতে উৎসাহিত। আমরা আপনাদের সেবায় সর্বদা আছি। আপনাদের করের টাকাতেই দেশের উন্নয়ন হয়।’

এবারে আট বিভাগীয় শহরে সাত দিন, ৫৬টি উপজেলায় চার দিন, ৩৪টি উপজেলায় দুই দিন ও ৭১টি উপজেলায় (ভ্রাম্যমাণ) এক দিন মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

বুধবার মোট ১৮টি জেলা, দুটি উপজেলাসহ ২০টি স্পটে মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  আর রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণাধীন রাজস্ব ভবনে বৃহৎ পরিসরে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ঢাকায় করদাতাদের সেবায় আয়কর মেলায় ৩৮টি আয়কর রিটার্ন গ্রহণ বুথ, ২২টি হেল্প ডেস্ক বুথ, বৃহৎ করদাতা ইউনিটের একটি বুথ, সঞ্চয় অধিদপ্তরের একটি, কাস্টমসের একটি, মূসক বা ভ্যাটের একটি, কেন্দ্রীয় কর জরিপ অঞ্চল একটি, মুক্তিযোদ্ধা একটি বুথ, সিনিয়র সিটিজেন একটি বুথ, প্রতিবন্ধী একটি বুথ, মিডিয়া সেন্টার, মেডিক্যাল টিম একটি বুথ, ই-টিআইএন তিনটি বুথ, বিসিএস কর একাডমির একটি বুথ, আইআরডি একটি বুথ, ট্যাকসেস আপিলাত ট্রাইব্যুনাল একটি, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনাল একটি বুথ, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ, এটুআই, এনআইএলজি একটি, র‌্যাব, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা চারটি, লাইভ টেলিকাস্ট একটি, কর শিক্ষণ ফোরাম একটি, নামাজের স্থান, ক্যান্টিন, ফটোকপি, ট্যাক্স আইডি কার্ড ১০টি বুথ, ই-ফাইলিং একটি বুথ, জনতা ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক নয়টি বুথ, ই-পেমেন্ট ও কিউক্যাশের একটি বুথ থাকছে।

পুরো মেলা সিসিটিভির মাধ্যমে নিরাপত্তা প্রদান করা হচ্ছে। আয়করসংক্রান্ত সব ধরনের ফরম বিনামূল্যে প্রদান করা হচ্ছে। করদাতাদের বিনা ভাড়ায় যাতায়াত সুবিধার জন্য রাজধানীর টিএসসি, বেইলি রোড, মিরপুর-২ ও উত্তরা থেকে ১৩টি শাটল বাস নিয়োজিত থাকছে।