টয়লেটের পর কোনটি ভালো টিস্যু না পানি?

SHARE

বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন যে, টয়লেট পেপার সামান্য মল দূর করতে পারে এবং আমেরিকা হচ্ছে এমন একটি দেশ যেখানে টয়লেট করার পর মলদ্বার পরিষ্কারজনিত স্যানিটেশন বা স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতি হয়নি।

যেখানে জাপান, ইতালি এবং গ্রীসের মতো দেশ এ জন্য পানি ব্যবহার করে (বাইডেটের মাধ্যমে), সেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রথাগতভাবে ব্যবহার করে টয়লেট পেপার। কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, এভাবে অতিরিক্ত মলদ্বার পরিষ্কার করার কারণে অ্যানাল ফিশার এবং ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা মূত্রনালিতে সংক্রমণের মতো সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

এই পরামর্শ হাস্যকর মনে হলেও, উইল স্মিথ এবং টেরেন্স হাওয়ার্ডের মতো তারকারা অনেক বছর ধরে টিস্যুর পরিবর্তে বেবি ওয়াইপ ব্যবহার করছেন। উইল স্মিথ এ অভ্যাসের প্রশংসা করতে গিয়ে বলেন, এটি অসাধারণ এবং অবিশ্বাস্য। এদিকে টনিক ডট ভাইস ডটকমের মতে, ইতালি, স্পেন ও গ্রীসের ৯০ শতাংশ পরিবারে বাথরুমে বাইডেট বসানো হয়েছে। এটি মলদ্বারে জল ছিটিয়ে দেয় যাতে টয়লেট পেপার দিয়ে সহজে পরিষ্কার করা যায়। কিন্তু এই ব্যবস্থা যুক্তরাষ্ট্রের বাথরুমে পাওয়া সহজ নয়। বাইডেট সরবরাহকারীরা জানান যে, তাদের পক্ষে আমেরিকান মার্কেটে বাইডেট যোগান দেওয়া বেশ কঠিন, কারণ সেখানকার বেশিরভাগ লোক শুধুমাত্র টয়লেট পেপার ব্যবহারেই সন্তুষ্ট থাকে।

‘বিগ নেসেসিটি: দি আনমেনশনেবল ওয়ার্ল্ড অব হিউম্যান ওয়াস্ট অ্যান্ড হোয়াই ইট ম্যাটারস’-র লেখক রোজ জর্জ টনিক বলেন, টয়লেট পেপার যতটুকু মল দূর করা উচিত তা করতে পারছে না। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে এটা নোংরা ব্যাপার মনে হয় যে, লক্ষ লক্ষ মানুষ অপরিচ্ছন্ন মলদ্বার নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং তারা ভাবছে যে, তারা পরিচ্ছন্ন।’

অভিনেতা ও পরিচালক উইল স্মিথ বিবিসি ওয়ান রেডিওকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে বেবি ওয়াইপ সম্পর্কে বলেন, ‘আমি হলাম এমন প্রকৃতির ব্যক্তি যে বেবি ওয়াইপ ব্যবহার করি। তাই এটি শেয়ার করা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। যখন আমি কোনো কিছু নিয়ে অসাধারণ ও অবিশ্বাস্য অভিজ্ঞতা লাভ করি, আমি তা লোকজনের কাছে শেয়ার করতে পছন্দ করি। যে কেউ, যে কিনা শুষ্ক টয়লেট পেপার ব্যবহার করেন, আপনি প্রকৃতপক্ষে আসল কাজটি করছেন না।’

অন্যদিকে, গেনেথ প্যালট্রো স্যানিটেশনের জন্য বেশ ব্যয়বহুল উপায় বেছে নিয়েছেন। তিনি ২০১৫ সালে তার ধারণাটি প্রকাশ করেন এবং সেটি হলো ১০০ ইউএস ডলার মূল্যের টয়লেট পেপার ব্যবহার করা। শুধুমাত্র পরিচ্ছন্নতার জন্যই যে লোকজনের বাইডেট বা বেবি ওয়াইপ ব্যবহারের কথা চিন্তা করা উচিত তা নয়। টিস্যু দিয়ে আগ্রাসীভাবে পরিষ্কার করলে তা অ্যানাল ফিশার ও হেমোরয়েড বা পাইলসের মতো স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। পায়ুপথের আস্তরণ ছিঁড়ে যাওয়াই হলো অ্যানাল ফিশার। এর ফলে মলত্যাগের সময় রক্তপাত বা ব্যথা হতে পারে। অধিকাংশ ফিশার ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের মধ্যেই সেরে যায়, কিন্তু মলদ্বার পরিষ্কারের সময় সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত- অন্যথায় পায়ুপথে জ্বালাতন হতে পারে।

নিম্নস্থ রেক্টাম ও মলদ্বারে রক্তনালী ও টিস্যু স্ফীত হওয়া বা ফুলে যাওয়াই হচ্ছে হেমোরয়েড বা পাইলস। এটি ফিশারের চেয়েও মারাত্মক এবং কখনো কখনো এর চিকিৎসা করা দুঃসাধ্য হয়ে ওঠে। মলদ্বারের আশপাশে এক্সটারনাল হেমোরয়েড হয়ে থাকে। মলদ্বার টিস্যু দিয়ে অত্যধিক পরিষ্কার করলে এখানে জ্বালাতন হতে পারে। ক্রিম বা ওষুধ দিয়ে এর চিকিৎসা করা যায়। এছাড়াও বাইডেট মানুষের ইউরিনারি ট্র্যাক ইনফেকশন প্রতিরোধ করতে পারে। যদি লোকে পেছন থেকে সম্মুখে টিস্যু দিয়ে পরিষ্কার করে, তাহলে তারা মলদ্বার থেকে ব্যাকটেরিয়া শরীরের সম্মুখে টেনে নেয়। এটি বিশেষ করে নারীদের ক্ষতি করে এবং তাদের ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনের আশঙ্কা থাকে। সুতরাং টিস্যুর চেয়ে পানি অনেকগুণ ভালো কার্যকারী উপায়। বাইডেট বা ওয়েট ওয়াইপ ব্যবহারে ব্যাকটেরিয়া নির্মূল হয় এবং ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন প্রতিরোধ করা যায়।