তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ; ধর্ষকের বিচারের দাবিতে শেরপুরে মানববন্ধন

SHARE

শেরপুর সদর উপজেলার চরশেরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত ধর্ষক জসিম উদ্দিনের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ওই  বিদ্যালয়টির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। আজ দুপুরে শহরের নিউমার্কেট মোড়ে হিউম্যান রাইটস অব বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন শেরপুর জেলা শাখার আয়োজনে এ মানববন্ধনে জেলার বিভিন্ন সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠনের সদস্যসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জেলা শাখার সভাপতি এসএম শহীদুল ইসলাম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এম এ মাসুদ ও ধর্ষিতার হতদরিদ্র পিতা। ওইসময় একাত্মতা পোষণ করে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার জিন্নাত আলী, কবি সংঘ’র সভাপতি তালাত মাহমুদ, জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি মো. মেরাজ উদ্দিন, দুদকের পিপি এডভোকেট মোখলেসুর রহমান জীবন, জেলা মানবাধিকার কমিশনের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন, কেন্দ্রীয় প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির প্রচার সম্পাদক খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান।

এসময় বক্তারা শেরপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নাহিদ কামাল কেয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষিতার রিপোর্ট নিয়ে লুকোচুরির অভিযোগ এনে এবং ধর্ষক জসিমের বিচারের দাবিতে সিভিল সার্জন, জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। লিখিত স্মারক লিপিতে, গত ৬ অক্টোবর শুক্রবার বিকেলে চৌধুরি বাড়ী বিলে ওই শিক্ষার্থী ধর্ষণের স্বীকার হয়। ঐদিন রাতেই শিশুটির বাবা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। অভিযোগের বিষয়ে আরএমও ডা. কেয়া বলেন বোর্ড কর্তৃক মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে এখনও পরীক্ষার ফলাফল সম্পন্ন হয়নি। সুতারাং অভিযোগ তোলার সুযোগ নেই। এদিকে মানব বন্ধন চাকালিন অভিযুক্ত জসিম উদ্দিন আদালতে হাজিরা দিয়েছে। আদালত জসিমকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে বলে জানা গেছে