SHARE

মিয়ানমার থেকে আসা এক মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন বাংলাদেশি এক ছেলে। ওই ঘটনায় ছেলেটির পিতা তার পরিবারকে হয়রানি ও গ্রেপ্তার না করার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছিলেন । বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ রিটটি খারিজ করে দেন। পাশাপাশি রিট আবেদনকারীকে ৩০ দিনের মধ্যে খরচা বাবদ এক লাখ টাকা সংশ্লিষ্ট শাখায় জমা দিতে বলা হয়েছে। ওই রিটের পক্ষে আজ আদালতের শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এ বি এম হামিদুল মিসবা। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার বাবুল হোসেন তার পরিবারকে হয়রানি ও গ্রেপ্তার না করার নির্দেশনা চেয়ে রিট করেছিলেন। তার ছেলে শোয়েব হোসেন জুয়েল কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয়া রাফিসা (১৮) নামের এক মেয়েকে বিয়ে করেন।

উল্লেখ্য, গেল বছর ২৫শে অক্টোবর আইন মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে ‘বিশেষ এলাকা’ সমূহে বিবাহ নিবন্ধন সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়। নির্দেশনায়, বাংলাদেশি ছেলের সঙ্গে মিয়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গা মেয়েদের বিয়ের বিষয়ে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। রিটে ওই নির্দেশনার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেন বাবুল হোসেন। একইসঙ্গে, আইন মন্ত্রণালয়ের ওই  বিজ্ঞপ্তির কার্যকারিতাও স্থগিত চাওয়া হয়।

26 Views