SHARE

আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম বলেছেন, ‘একদিকে সরকারের উন্নয়ন, অন্যদিকে বিএনপি-জামায়াতের আগুন সন্ত্রাসের চিত্র সারা দেশে প্রচার করতে হবে। তাহলে আমরা এমনিতেই জয়ী হবো।’

রোববার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি আয়োজিত ‘বিএনপি-জামায়াতের অগ্নিসন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের খণ্ডচিত্র’ শীর্ষক আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি।

৫ মে হেফাজতের ঢাকা আক্রমণের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘২০১৩ সালে প্রথমবার ঢাকায় হেফাজতের বড় রকমের আক্রমণ হয়। ওই সময় তারা খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। পেছনের প্রেক্ষাপট বলার কারণ হচ্ছে এটি সুপরিকল্পিত ও কত গোছানো একটি ষড়যন্ত্র ছিল।’

এরপর ৫মে হেফাজতের শাপলা চত্ত্বরে অবস্থানের প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা বলেন, ‘ওই সময় তারা প্রথম যে আক্রমণটি করে তাতেই বোঝা গিয়েছিল পরে আরো কিরকম বীভৎস আক্রমণ তারা করতে পারে। তাদের উদ্দেশ্য ছিল সচিবালয় ঘেরাও। তবে ওই রাতেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সম্মিলিতভাবে এটি সংক্রামিত করেছিল।’

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে-পরে বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাসের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এগুলো উৎপত্তিই হয়েছে এদের (বিএনপি-জামায়াত) দ্বারা। এগুলো পাকিস্তানি পরিকল্পনা।’

স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে বিএনপি-জামায়াত জোটের অনুসারীদের হাতে দেশের অর্থসম্পদ গচ্ছিত রয়েছে এমন দাবি করে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘তাদের অনেক বেশি সম্পদ। ১৯৭৫ থেকে ১৯৯৬ পরবর্তী ২০০১ থেকে ২০০৬; এখনো দেশের ধন সম্পদ তাদের হাতে। ধন সম্পদের সাথে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা যদি তার সঙ্গে যোগ হয় তাহলে তারা ইচ্ছেমতো সবিকিছুই করতে পারে।’

আগামী জাতীয় নির্বাচনের দলীয় প্রচারের কৌশল তুলে ধরে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘আমরা আজ উদ্বোধন করলাম। এরপর প্রত্যেকটি বিভাগীয় শহরে নিয়ে যাবো। জেলায় তারপর থানা-উপজেলা পর্যন্ত যাবো। কিন্তু সেটি সহজ হতে পারে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রার্থীরাই এই প্রচারণা করুক।’

এ বিষয়ে জাতীয় নির্বাচনে দলের সব মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘আপনাদের নিজেদের উদ্যোগী হতে হবে। আপনারা নিজেরাই আমাদের কাছ থেকে ভিডিও নিয়ে যান। নিজ নিজ এলাকায় দেখান এবং প্রচার করেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের হাতে সময় খুব কম। নির্বাচনের খুব বেশি দেরি নেই। নির্বাচনের প্রস্তুতি যখন সবাই শুরু করবে তখন এই প্রচারের কথা অনেকের মনে নাও থাকতে পারে। এখন থেকেই জনমতের সমর্থন আনতে হবে।’

দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রচার-প্রচারণার কাজে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আসুন আমরা কাজ শুরু করি। শুধু মুখের কথা ও বক্তব্যে নয়। একদিকে আমরা তারা কি করেছে সেটা দেখাব আর আমরা কি করেছি সেটা দেখাব।’

এইচ টি ইমামের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সদস্য সচিব এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। সভা পরিচালনা করেন দলের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য এবিএম রিয়াজুল কবির কাওছার প্রমুখ।

এছাড়া ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি-জামায়াত জোটের আগুন সন্ত্রাসের ভিকটিম এবং নিহতের আত্মীয়-স্বজনরা স্মৃতিচারণ করেন।

27 Views