SHARE

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৫ জানুয়ারি সমাবেশের অনুমতি না পেলে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অনুমতি চাইবে বিএনপি। 

দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করতে চাই-সরকার বিএনপির গণতান্ত্রিক অধিকারের প্রতি সম্মান জানাবে। সমাবেশের অনুমতি দিয়ে বিএনপিকে শান্তিপূর্ণ সমাবেশের সুযোগ করে দেবে। যদি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়া হয় তাহলে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আগামী ৫ জানুয়ারি ২০১৮, সমাবেশের অনুমতি দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

বুধবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।
 
দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন (৫ জানুয়রি) ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা দিয়ে প্রতি বছর কর্মসূচি গ্রহণ করে থাকে বিএনপি। এ দিনটিকে কেন্দ্র করে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামিক পার্টি নামের একটি দলকে সামবেশের জন্য দেয়া হয়েছে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বিএনপিকে না দিয়ে অন্য একটি রাজনৈতিক দলকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়াকে সরকারের প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ‘৫ জানুয়ারি একটি অখ্যাত ও অজানা একটি দলকে নাকি অনেক আগেই জনসভার অনুমতি দেয়া হয়েছে। বিএনপির আবেদনকে পাশ কাটিয়ে অনেক আগেই অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে পুলিশ যে কথা বলছে, সেটি সরকারের হীন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ। এটি সরকারের হিংসাত্মক নীতির একটি অংশ।’

সভা সমাবেশ করা রাজনৈতিক দলগুলোর গণতান্ত্রিক অধিকার দাবি করে তিনি বলেন, ‘বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার জোর করে ক্ষমতায় বসার পর থেকে বিএনপিসহ বিরোধী রাজনৈতিক দলের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করে চলেছে। বিএনপিকে সভাসমাবেশে বাধা দেওয়া হয়েছে বারবার।’

এছাড়া আদালতে হাজিরা দিয়ে যাওয়া ও ফেরার পথে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহর ঘিরে থাকা বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়াকে নেতৃবৃন্দ থেকে আলাদা করতে পরিকল্পিতভাবে বারবার বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের ওপর সরকারের নির্দেশে এ হামলা চালাচ্ছে পুলিশ। আজকে পুলিশি হামলায় বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী আহত হয়েছে এবং আটক করা হয়েছে কয়েকজন নেতাকর্মীকে।’

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোন নীলনকশাই সফল হবে না জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘জালিয়াতি করে সাজানো মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সনকে হয়রানির উপযুক্ত জবাব একদিন জনগণ ঠিকই দিবে।’

তিনি নেতাকর্মীদের ওপর ‘হামলা’র ঘটনার নিন্দা জানিয়ে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি নেতাদের আবদুস সালাম, আবুল খায়েল ভুইয়া, আজিজুল বারী হেলাল প্রমুখ।

27 Views