ডাকাতি করতে এসে চার নারীকে ধর্ষণ

69 Views
SHARE

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলায় এক বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে চার নারীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ধর্ষন করে স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে গেছে ডাকাতরা।  ধর্ষণের শিকার তিন নারী একে অন্যের জা ও একজন বেড়াতে এসেছিলেন ঐ বাড়িতে। 

জানা যায়, ১২ ডিসেম্বর রাত প্রায় একটার দিকে বাড়ির একটি কক্ষের জানলার গ্রিল কেটে চার ডাকাত ভেতরে প্রবেশ করে।  তখন ঘুমিয়ে ছিলেন বৃদ্ধা মা, তাঁর তিন ছেলের স্ত্রী ও বেড়াতে আসা এক আত্মীয়া।  ঘরে ঢুকে ডাকাতেরা প্রথমে ১৫ ভরি স্বর্ণ, টাকা ও মূল্যবান মালামাল লুট করে।  বাড়িতে কোনো পুরুষ সদস্য দেখতে না পেয়ে চার নারীকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে ডাকাতেরা। 

এদিকে ঘটনার  পাঁচ দিন পর মামলা নিয়েছে কর্ণফুলী থানা।  বিষয়টি জানাজানি হয় সোমবার।  এসময় মামলা করতে পুলিশের অসহযোগিতার কথা উঠে আসে। 

পরিবারের সদস্যরা বলেন,  ঘটনার পরদিন কর্ণফুলী থানাতে মামলা করতে গেলে তারা আমাদের পটিয়া থানাতে পাঠায়।  পটিয়া থানা থেকে আবার কর্ণফুলী থানায় পাঠায়।  পরে ভূমি প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশে সক্রিয় হয় পুলিশ।  আটক করে দুইজনকে।  আটক দুজন হল মোহাম্মদ সুমন ওরফে আবু ও  কালু। 

মামলা নিতে দেরি করার কারণ জানতে চাইলে কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুল মোস্তফা বলেন, প্রথমে তাঁরা ধর্ষণের কথা বলেননি।  তাঁরা গ্রামের নামও ভুল বলেছিলেন।  সেটি পটিয়া থানায় পড়ায় তাঁদের সেখানে পাঠানো হয়েছিল।  পরে ২-১ দিন পর এসে তাঁরা ঠিক নাম বলেন।  তাই কর্ণফুলী থানায় অভিযোগ নেওয়া হয়েছে।