‘কূটনৈতিক বিতর্ক থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র-তুরস্কের সামরিক সম্পর্ক ভালো’

যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের মধ্যে কূটনৈতিক টানাপোড়েন চলা সত্ত্বেও ন্যাটোর অংশীদার এ দু’দেশের সামরিক বাহিনী ভালোভাবেই একসাথে কাজ করে যাচ্ছে। বুধবার মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস একথা বলেন।

খবর এএফপি’র।

ফ্লোরিডায় একটি সামরিক সদর দফতর পরিদর্শনকালে ম্যাটিস সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা অনেক ঘনিষ্ট সহযোগিতা, ভাল যোগাযোগ ও সামরিক বাহিনীর মধ্যে পারস্পরিক আলোচনা বজায় রেখেছি। এক্ষেত্রে কূটনৈতিক বিরোধের কোন প্রভাব পড়েনি। ’

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘আমরা তুরস্কের সামরিক বাহিনীর সাথে ভালভাবে কাজ করে যাচ্ছি। ’

গত বছরের ব্যর্থ সামরিক অভ্যত্থানে অভিযুক্ত গ্রুপের সাথে সম্পর্ক থাকার অভিযোগে আমেরিকান কনস্যুলেটে চাকরি করা এক তুর্কি নাগরিককে গ্রেফতার করায় গত সপ্তাহে এ দু’দেশ কূটনৈতিক বিরোধে জড়িয়ে পড়ে।

এমন পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কে তাদের মিশনে অভিবাসী নন এমন ব্যক্তির ভিসা ইস্যু করা বন্ধ করে দেয়। এরপরই যুক্তরাষ্ট্রে তুরস্কের মিশন এ ব্যাপারে অনুরূপ পদক্ষেপ গ্রহণ করে।

তুরস্ক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু পারস্পরিক বিতর্কিত ভিসা সার্ভিস নিয়ে আলোচনা করতে বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন। বিগত বছরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে অন্যতম এ সংকট ওয়াশিংটন ও আঙ্কারার মাঝে দেখা দেয়ার পর থেকে এই প্রথম তারা কথা বললেন।

মঙ্গলবার পেন্টগণ মুখপাত্র জানান, এ কূটনৈতিক বিরোধ ন্যাটো বা তুরস্কের সাথে মার্কিন সামরিক সম্পর্কের ওপর কোন প্রভাব ফেলেনি।