একদিনে দুই মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

একই দিনে দুটি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন পৃথক দুই আদালত। আজ বৃহস্পতিবার হাজিরা না দেয়ায় ঢাকা মহানগর হাকিম ও বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালতে এ রায় দেয়া হয়।
মামলা দুটি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধকে ‘কলঙ্কিত’, বাংলাদেশের মানচিত্র ও জাতীয় পতাকাকে ‘অপমানিত’ করার অভিযোগে দায়ের করা মানহানির মামলা এবং এতিমদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জিয়া অরফানেজ দুর্নীতির মামলা।
আজ বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার সমনের জবাব দেয়ার দিন ধার্য ছিল। সমনের জবাব দিতে আদালতে হাজির না হওয়ায় ঢাকা মহানগর হাকিম নুর নবী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।
গত ১৭ই সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম নুর নবী বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ৫ই অক্টোবরের মধ্যে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দেন। আত্মসমর্পণ না করলে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাসহ আইনগত ব্যব¯’া গ্রহণ করবে বলে জানান বিচারক। ৫ই অক্টোবর বিচারক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশের জন্য ১২ই অক্টোবর দিন ধার্য করেন। এর আগে গত ২২ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম নুর নবী খালেদাকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন।

অন্য দিকে জিয়া অরফানেজ দুর্নীতি মামলায় আজ খালেদার আত্মপক্ষের সমর্থনের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু  আজ খালেদা আদালতে হাজির হতে না পারায় তার আইনজীবীরা সময়ের আবেদন করেন। বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান খালেদার সময়ের আবেদন না মঞ্জুর করে বেলা ১২টার দিকে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।
এ ছাড়া জিয়া অরফানেজ মামলাটির যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য ১৯ই অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত। এই মামলার অপর দুই আসামি মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের জামিন না মঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোরও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।