ছাত্রদল নেতা আশিকসহ ৭ জন গ্রেপ্তার

নব্বইয়ের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শহীদ জেহাদের ভাই সর্ব উদ্দিন ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক মফিজুর রহমান আশিকসহ ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শহীদ জেহাদ দিবস উপলক্ষে রাজধানীর দৈনিক বাংলা মোড়ে জেহাদ স্কয়ারে ফুল দিতে গেলে তাদের গ্রেপ্তার করে মতিঝিল থানা পুলিশ। এর আগে জেহাদ স্কয়ারে ফুল দিতে সকাল ৮টা থেকে জমায়েত হতে থাকে বিএনপি এবং ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। প্রায় ৪ শতাধিক নেতাকর্মী সকাল সাড়ে ৯টায় জেহাদ স্কয়ারে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমানের নেতৃত্বে ফুল দিতে গেলে পুলিশ পিছন থেকে ৭জনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তার কৃতরা হলেন- শহীদ জিহাদের ভাই কে এম সরফ উদ্দিন, ২০ দলীয় জোট শরীক দল এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মনজুর হোসেন ঈসা, ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান আশিক, সহ-সাংগঠনিক আশরাফ ফারুক হিরা, তেজগাঁও কলেজের দপ্তর সম্পাদক জুয়েল ভূইয়া, আরাফাত বিল্লাহ খান, সাজিদ হোসেন বাবু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন নবী খান সোহেল, সহ-দপ্তর মুনির হোসেন, বিএনপি নেতা নাজিম উদ্দিন আলম, সেচ্ছাসেবক দলের নেতা সফিউল বারী বাবু, সাদরাজ জামান, নজরুল ইসলাম, মোর্শেদ আলম, ছাত্রদলের মধ্যে ছিলেন সভাপতি রাজিব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল আহসান, এ ছাড়াও নাজমুল হাসান, তারেকুজ্জামান, আলমগীর হোসেন সোহাম, জহিরুল ইসলাম বিপ্লব, কাজী মোকতার হোসেন, আরিফা সুলতানা রুমা, মিনাজুল ইসলাম, আবদুস সাত্তার পাটোয়ারি, গাজী জুয়েল, শাহাদাৎ চৌধুরী, মামুন খান, শিরিন আহম্মেদ প্রমুখ। প্রসঙ্গত, স্বৈরাচার এইচএম এরশাদের সামরিক শাসন আমলে ১৯৮৯ সালের ১০ অক্টোবর পুলিশের গুলিতে নিহত হন শহীদ নাজির উদ্দিন জেহাদ।