ছোট ভায়রাকে হত্যার চেষ্টা, বড় ভায়রা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে পাওনা টাকা না দেওয়ার জন্য ছোট ভায়রাকে নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন করিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে বড় ভায়রাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তার বিরুদ্ধে বন্দর থানায় মামলা হয়েছে।

শনিবার রাতে পুলিশ জনতার সহায়তায় ছোট ভায়রা ফারুককে (৪৫) উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। পরে রবিবার (৮ অক্টোবর)সকালে পুলিশ বড় ভায়রা হাফিজুর রহমানকে (৪৮) তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে।

হাফিজুর রহমান রূপালী আবাসিক এলাকার নজরুল মিয়ার ভাড়াটিয়া মৃত সাইদুর রহমানের ছেলে। অপরদিকে, ফারুক মাহমুদ নগর এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

ফারুক জানিয়েছেন, তার ভায়রা হাফিজুর তাকে তার পাওনা এক লাখ টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে তাকে প্রেমের বাজারে ডেকে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাকে নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন করিয়ে স্থানীয় একটি পুকুরের পানিতে চুবিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। সে অবস্থা বুঝতে পেরে মৃত্যুর ভান ধরে পড়ে থাকে। ফারুকের মৃত্যু হয়েছে ভেবে হাফিজুর তাকে ফেলে রেখে চলে আসে। হাফিজুর চলে গেলে সে চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে খবর দেয়।

রাতেই পরিবারের লোকজন বন্দর থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ভোরে পুলিশ অভিযুক্ত বড় ভায়রাকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় বন্দর থানায় মামলা হয়েছে।

বন্দর থানার ওসি আবুল কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, এ ঘটনায় মামলা নেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।