বেরোবিতে ২০ শিক্ষকের পদোন্নতি, বঞ্চিতদের ক্ষোভ

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে আপগ্রেডেশন বোর্ডের সুপারিশকৃত ২৯ জন শিক্ষকের মধ্যে ২০ জনকে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। বাকি ৯ জন শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিত রয়েছে। গত ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৪ তম সিন্ডিকেট সভায় এই ২০ শিক্ষককে পদোন্নতি দেওয়া হয়। আপগ্রেডেশন বোর্ড এবং প্লানিং কমিটি সুপারিশের পর পদোন্নতি না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আপগ্রেডেশন বঞ্চিত কয়েকজন শিক্ষক। পদোন্নতি বঞ্চিতদের মধ্যে নীলদল ও প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী শিক্ষকও রয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, পদোন্নতি পাওয়া ২৩ শিক্ষকের মধ্যে বাংলা বিভাগের শিক্ষক পরিমল চন্দ্র বর্মণ সহযোগী অধ্যাপক থেকে অধ্যাপক ও গণিত বিভাগের শিক্ষক রুহুল আমীন সহকারী অধ্যাপক থেকে সহযোগী অধ্যাপক ও বাকি ১৮ শিক্ষক প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেয়েছেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এবং সিন্ডিকেট সভার সদস্য সচিব ইবরাহীম কবীর বলেন, ‘শিক্ষকদের আপগ্রেডেশনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. এ কে এম নুর-উন-নবীর সময়ে যে বোর্ড গঠন করা হয়েছিলো সেই বোর্ডের সুপারিশপ্রাপ্তদের মধ্য থেকে সিন্ডিকেট সভায় পুনরায় যাচাই-বাছাই করে নিয়ম অনুযায়ী শিক্ষকদের আপগ্রেডেশন দেওয়া হয়েছে।’

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, ৯ জন শিক্ষক পদোন্নতি না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ শিক্ষক সমিতি। তাদের দাবি ৯ শিক্ষককে বিনা কারণেই পদোন্নতি বঞ্চিত করা হয়েছে। যা বিধিসম্মত হয়নি। বিষয়টি দ্রুত সমাধান না হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মহামান্য রাষ্ট্রপতি বরাবর শিক্ষক সমিতি অভিযোগ করবে বলে জানা গেছে।

এদিকে সকল শর্ত পূরণ করেও পদোন্নতি বঞ্চিত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন শিক্ষক। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আপগ্রেডেশন বঞ্চিত এক শিক্ষক বলেন, ‘আপগ্রেডেশন বোর্ড এবং প্লানিং কমিটি সুপারিশ করার পরও সিন্ডিকেট সভায় কি কারণে আপগ্রেডেশন দেওয়া হলো না বিষয়টি আমাদের বুঝে আসছে না।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আপগ্রেডেশন নীতিমালায় রেয়াত আছে। আপগ্রেডশনে যারা বঞ্চিত হয়েছেন তারা নির্ধারিত শর্ত পূরণ করেই আবেদন করেছিলেন। তাদেরকে আপগ্রেডেশন না দেয়াটা বিধি সম্মত হয়নি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিটিএফও বলেন, ‘নিয়ম অনুযায়ী যাদের আপগ্রেডেশন পাওয়ার কথা সিন্ডিকেট সভায় তাদেরকেই আপগ্রেডেশনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত সর্বসম্মত এবং চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।’