পুরনো চেহারায় টাইগারবাহিনী

ম্যাচের ৬ সেশনে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের খেলা দেখে মনে হচ্ছিল  ব্লুমফন্টেইন ভেন্যুর উইকেটে কিছু নেই। কিন্তু বাংলাদেশ দল ব্যাটিংয়ে যাওয়ার পর পরই যেন ম্যাঙ্গায়ুং ওভাল মাঠের পিচ জীবন্ত হয়ে উঠলো! আরো একবার ঠুনকো ব্যাটিং দেখালো মুশফিকবাহিনী। ব্লুমফন্টেইন টেস্টের প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার ৫৭৩ রানের জবাবে দলীয় ৫০ পূরণের আগেই বাংলাদেশ খোয়ায় চার উইকেট। ইনিংসের ১৪.২তম ওভার শেষে বাংলদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৪৯/৪-এ। ব্যাটিংক্রমের শীর্ষ পাঁচ খেলোয়াড়ের চার জনই সাজঘরে ফেরেন ব্যক্তিগত এক অঙ্কের রানে। ব্যাট হাতে সৌম্য সরকার, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহীম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সংগ্রহ ছিল যথাক্রমে ৯, ৪, ৭ ও ৪। এ চার টাইগার ব্যাটসম্যানের মধ্যে মিল ছিল আরেকটি। ক্ষণস্থায়ী ইনিংসে এদের প্রত্যেকের ব্যাট থেকেই আসে বাউন্ডারির মার। টাইগারদের শুরুর চার উইকেট ভাগাভাগি করেন প্রোটিয়া তিন পেসার কাগিসো রাবাদা, ডুয়ান অলিভার ও ওয়েইন পারনেল। এতে ৬১/৪ সংগ্রহ নিয়ে ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের চা বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।
গতকাল ব্লুমফন্টেইনে ৫৭৩/৪ সংগ্রহ নিয়ে ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণ আফ্রিকা। আর জবাবে বাংলাদেশের ওপেনিং জুটি ক্রিজে টেকে মাত্রই ৬.৪ ওভার। ২৩ বলের ইনিংসে দুটি চার হাঁকিয়ে ফর্ম দেখাচ্ছিলেন ওপেনার সৌম্য সরকার। কিন্তু প্রোটিয়া পেসার কাগিসো রাবাদার গুড লেন্থ বল আড়াআড়ি খেলতে গিয়ে নিজের লেগ স্টাম্প উপড়ে যেতে দেখেন সৌম্য। সিরিজের প্রথম টেস্টে ইনজুরির জন্য একাদশের বাইরে ছিলেন বাংলাদেশের এ বাঁহাতি ওপেনার। আর অপর ওপেনার তামিম ইকবালের ইনজুরিতে দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশ একাদশে জায়গা নেন সৌম্য সরকার। প্রথম টেস্টে উজ্জ্বল নৈপুণ্য দেখান ওয়ানডাউন ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক। পচেফস্ট্রমে প্রথম ইনিংসে ব্যাট হতে ৭৭ রান করেন মুমিনুল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশি কোনো ব্যাটসম্যানের ওটা সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। তবে গতকাল মুমিনুলও উইকেট দেন লেগের দিকে লাফিয়ে ওঠা বল খেলতে গিয়ে। ডুয়ান অলিভিয়ারের ডেলিভারি মুমিনুলের গ্লাভস ছুঁয়ে জমা পড়ে উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি ককের হাতে। অধিনায়ক মুশফিক সাজঘরে ফেরেন টেম্বা বাভুমার হাতে অসাধারণ ‘ক্যাচ’ হয়ে। আরো একবার উইকেটের বাইরের বল তাড়া করার খেসারত দেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। অফস্টাম্পের বাইরের বলে না কাট খেললেন না ড্রাইভ। ব্যাটের কানা নিয়ে বল জমা পড়ে উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে। এতে ৬১/৪ সংগ্রহ নিয়ে চা বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে ২৬ রান নিয়ে প্রতিশ্রুতি দেখাচ্ছিলেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ওপেনার ইমরুল কায়েস। কিন্তু  তবে বিরতি থেকে ফিরে ইমরুল বিসর্জন দিলেন নিজের উইকেট। বিরতির পর মাত্র তৃতীয় বলে প্রোটিয়া পেসার রাবাদার ওয়াইড ডেলিভারি  ইমরুল খেলতে গেলেন জায়গায় দাঁড়িয়ে। সময়ের হেরফেরে ইমরুলের ব্যাটের কানা নিয়ে বল জমা পড়ে উইকেটের পেছনে। ৪৬ বলের ইনিংসে ইমরুল হাঁকান চারটি চার। মূল খেলা শুরুর আগে চারদিনের প্রস্তুতি  ম্যাচের উভয় ইনিংসে অর্ধশতক হাঁকান সাব্বির রহমান। পরে বলেন, টেস্ট হোক কিংবা ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি। নিজের হাতখুলে খেলার অভ্যাস বদলাবেন না তিনি। কথা রেখেছেন সাব্বির। পচেফস্ট্রমে দুই ইনিংসে সাব্বির করেন যথাক্রমে ৩০ ও ৪। আর গতকাল তিনি উইকেট খোয়ান কোনো রান না করেই। স্টাম্পের বাইরে দেয়া রাবাদার ফুলার ডেলিভারি সোজা তুলে দেন একস্ট্রা কভারে। ক্যাচ তালুবন্দি করেন পারনেল।  এতে ইনিংসের মাত্র ১৯.৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬৫/৬-এ। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার ৪৯৬/৩ সংগ্রহের জবাবে প্রথম ইনিংসে লড়াই দেখান টাইগাররা। এতে মুমিনুল ও মাহমুদুল্লাহর অর্ধশতকে ৩২০ রানে পৌঁছে বাংলাদেশের সংগ্রহ। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে টাইগাররা ডোবে লজ্জায়। পচেফস্ট্রমে দ্বিতীয় দফা ব্যাটিংয়ে ৯০ রানে গুঁড়িয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।  বিদেশের মাটিতে গত এক দশকে দলীয় ১০০ রানের নিচে গুঁড়িয়ে যেতে দেখা যায়নি বাংলাদেশ দলকে।