পাঁচ দাবিতে নীলক্ষেতে সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সমাবেশ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা অনার্স দ্বিতীয় ও চতুর্থ বর্ষের ফল প্রকাশসহ পাঁচ দফা দাবিতে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড়ে সমাবেশ করেছে।
রোববার সকাল ৯টা থেকে এ বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে সাড়ে ১১টার দিকে প্রেসিডেন্টের কাছে স্মারকলিপি জমা দিতে বঙ্গভবনে যান আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এর আগে, গত ৫ই অক্টোবর জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এই সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করে শিক্ষার্থীরা। ওইদিন জাতীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ করার ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। তবে পুলিশ অনুমতি না দেয়ায় শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নেয়।
শিক্ষার্থীদের ৫ দফা দাবিসমূহ হলো: ১২’শ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, অনার্স চতুর্থ এবং দ্বিতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ, অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশ, তৃতীয় বর্ষের রুটিন প্রকাশ ও সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র ওয়েবসাইট খুলতে হবে।
আন্দোলনকারীদের অন্যতম সমন্বয়ক তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী ওমর ফারুখ সরকার জানান, গত ফেব্রুয়ারি মাসে ঢাবি এই ৭টি কলেজককে অত্যন্ত অগ্রহের সঙ্গে গ্রহণ করলেও তারা বিষয়টি নিয়ে গড়িমসি করছে। দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বন্দ্বে কারণে আমাদের ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার ফলাফল ৯ মাস পরেও দেয়নি। এতে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ছে।
অধিভুক্ত ৭ কলেজগুলো হচ্ছে- ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। এদিকে সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নীলক্ষেত মোড় অবরুদ্ধ থাকায় আজিমপুর ও মিরপুর রোডে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় ঢাবি ও তার আশপাশের এলাকায় যানবাহন চলাচলে ব্যাপক ভোগান্তির সৃষ্টি হয়।