ঠাকুরগাঁওয়ে মেয়েকে বিষ খাওয়ানোর পর মায়ের আত্মহত্যা

মো: জুনাইদ কবির,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ॥ ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈল উপজেলায় তিন বছরের কন্যা শিশুকের বিষ খাওয়ানোর পর কহিনুর বেগম কনিকা (২২) নামে এক গৃহবধু নিজ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

রবিবার দুপুরে উপজেলার বাচোর ইউনিয়ন সহদোর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কহিনুর বেগম কনিকা (২২) সহদোর গ্রামের মানিকের স্ত্রী এবং আহত তিন বছরের কন্যা শিশু মাহি মানিকের মেয়ে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে কহিনুর বেগমের সাথে তাঁর স্বামী মানিকের ঝগড়া হয়। এনিয়ে মানিক তাঁর স্ত্রীকে বেধরক মারপিট করে। এরই জের ধরে রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সকলের গৃহবধু কহিনুর তাঁর তিন বছরের কন্যা শিশু মাহিকে বিষ খাইয়ে দেন । এরপর নিজের শয়ন ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে গৃহবধু কহিনুর।

খবর পেয়ে রাণীশংকৈল থানা পুলিশ ঝুলন্ত অবস্থায় কহিনুরের লাশ উদ্ধার করে এবং জীবিত অবস্থায় তিন বছরের কন্যা শিশু মাহিকে রাণীশংকৈল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতলে ভর্তি করানো হয়। পরে সেখানে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রানীশংকৈল থানার ওসি আব্দুল মান্নান বলেন, ঘটনাটির সঠিক ঘটনা জানার চেষ্টা করছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।