ময়মনসিংহ বিভাগ

হাইকোর্টের রায় অমান্য করে ভূমিহীনদের বসতবাড়ি গুড়িয়ে দিয়েছে বন কর্মকর্তা

আরএম সেলিম শাহী, ময়মনসিংহ বিভাগীয় ব্যুরো : শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার গজনীতে ২০ ভূমিহীন পরিবারের বসত ঘর গুড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় বন কর্মকর্তারা। হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে রাতের আধারে ভূমিহীনদের বসতঘর গুড়িয়ে দেয়। ১৭ ডিসেম্বর সোমবার ভূমিহীন পরিবারের সদস্যরা এর প্রতিকারের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে বিচার প্রার্থনা করে একটি স্মারকলিপি প্রদান করে। এসময় ডেফলাই ঝিনুক গুচ্ছ গ্রামের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, এরশাদ সরকারের শাসনামলে ডেফলাই গ্রামে ঝিনুক গুচ্ছ গ্রাম স্থাপন করে সরকারীভাবে আমাদের ২০ পরিবারকে পূর্নবাসন করা হয়। ১৯৯২ সালে আমাদের ভূমিহীন পরিবারের সদস্যদের জীবিকা নির্বাহের উদ্দেশ্যে তৎকালীন জেলা প্রশাসক ২০ পরিবারের নামে উপজেলা গজনী মৌজায় ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত ২৫.৯২ একর ভূমি চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত দেন। তিনি আরও বলেন, এসময় জেলা প্রশাসকের সহযোগিতায় ব্যাংক ঋণের মাধ্যমে উক্ত জমিতে কৃষি খামার গড়ে তুলি। এ কৃষি খামারে আমাদের ভূমিহীন পরিবার ছাড়াও  তাধিক পরিবার শ্রম বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিল। ২০১৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা কৃষি খামার ঘরবাড়ি গুড়িয়ে দিয়ে গরু
ছাগলসহ সব কিছু লুটপাট করে নিয়ে যায়। এতে বেকার হয়ে পড়ে শতাধিক পরিবার। এ ব্যাপারে ক্ষতিপূরণের দাবীতে আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। পরে ভূমিহীন পরিবারের পক্ষ থেকে এই জমির পর হাইকোর্টে একটি রিট মামলা দায়ের করা হয়। আদালত ওই রিটের আলোকে বিবাদীদের বিরুদ্ধে উক্ত জমির উপর স্থিতি অবস্থার নির্দেশ দেন। এমতাবস্থায় ১৪ ডিসেম্বর আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে রাংটিয়া
রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী দল ভূমিহীনদের অবশিষ্ট টং ঘরসহ ৩টি ঘর দেশীয় অস্ত্র দ্বারা কুপিয়ে তছনছ করে দেয়। বর্তমানে ওই ভূমিহীন পরিবারের সদস্যরা খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবনযাপন করে আসছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবেল মাহমুদ বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে ভূমিহীন পরিবারের সদস্যদের আশ্বস্ত করেন। রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমি কোন ঘরবাড়ি গুড়িয়ে দেয়নি। আমাকে ফাঁসানোর জন্য ভূমিহীন পরিবারের সদস্যরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে।