আইন আদালত

সম্পদের তথ্য গোপনে মওদুদের বিরুদ্ধে মামলা চলবে

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ফলে নিম্ন আদালতে মামলার কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সোমবার সকালে হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও এসএম কুদ্দুস জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।আদালতে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নিজেই শুনানি করেন। তাকে সহযোগিতা করেন ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মাহমুদ মাসুদ। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

২০০৭ সালের ৩ জুলাই মওদুদকে তার নিজের, স্ত্রীর ও পোষ্যদের নামে-বেনামে অর্জিত যাবতীয় স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ও তার উৎস জানাতে নির্দেশ দেয় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ওই সময় কারাগারে থাকায় সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিল করেন তিনি।মামলার অভিযোগে বলা হয়, মওদুদ আহমদ তার দেওয়া হিসাব বিবরণীতে চার কোটি ৪০ লাখ ১৮ হাজার টাকা মূল্যের সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন। জ্ঞাত আয়ের বাইরে ৯ কোটি ৪ লাখ ৩৭ হাজার ২৩৩ টাকার সম্পদের তথ্য পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, মওদুদ আহমদের দাখিল করা সম্পদের হিসাব বিবরণীতে তার জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়— এমন সাত কোটি ৩৮ লাখ ৬৪ হাজার ২৮৭ টাকা মূল্যের সম্পদ অর্জন করাসহ চার কোটি ৪০ লাখ ৩৭ হাজার ৩৭৫ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন মর্মে দুদকের অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে।

এরপর ২০০৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক শরিফুল হক সিদ্দিকী বাদী হয়ে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে রাজধানীর গুলশান থানায় মওদুদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ১৪ মে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২০১৮ সালে ২১ জুন চার্জগঠন করেন আদালত।