শিক্ষাঙ্গন

রাবি কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সংস্কার ও আসন বৃদ্ধির দাবিতে মানববন্ধন

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সংস্কার ও আসন সংখ্যা বৃদ্ধির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার দুপুর একটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

স্মারকলিপিতে, সপ্তাহে সাতদিন গ্রন্থাগার খোলা রাখা, প্রতিদিন সকাল আটটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত গ্রন্থাগার খোলা রাখা (শুক্রবার বিকাল তিনটা থেকে রাত দশটা), গ্রন্থাগারের অভ্যন্তরে প্রয়োজনীয় বইপত্র নিয়ে প্রবেশের অনুমতি ও বই রাখার ব্যবস্থা করা, দ্রুত গতির ইন্টানেট সেবা ও নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, প্রতিদিন গ্রন্থাগারের ডিসকাশন রুমে জায়গা দখলের জন্য শিক্ষার্থীদের ভোর হওয়ার আগেই সিরিয়াল দিয়ে রাখতে হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য মাত্র একশ’র কিছু বেশি আসন রয়েছে ডিসকাশন রুমে। তাই শিক্ষার্থীরা সেখানে পড়ার জায়গা পাচ্ছে না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে শিক্ষার্থীরর পড়াশুনার দিক থেকে পিছিয়ে পড়ছে।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ অনুযায়ী শিক্ষা ও গবেষণার দিক থেকে অনেক এগিয়ে থাকার কথা। কিন্তু প্রশাসনের গাফলতির কারণে আমরা পেছনের দিকে ধাবিত হচ্ছি। তিনি আরও বলেন, পড়াশুনার মান যত ভালো হবে, বিশ্ববিদ্যালয় ততো এগিয়ে যাবে। কিন্তু লাইব্রেরিতে যদি শিক্ষার্থীরা বই নিয়ে ঢুকতে না পারে, বিদ্যুৎ না থাকে, পড়াশুনার পরিবেশ না থাকে, তাহলে শিক্ষার মান ভালো হবে কিভাবে। এসময় শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মেনে নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

রাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু’র সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সহ-সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, হাবিবুল্লা নিক্সন, যুগ্ম সম্পাদক সাব্বির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক চঞ্চল কুমার অর্ক, ইমরান খান নাহিদ, ইমতিয়াজ আহমেদ, প্রচার সম্পাদক কামরুল হাসান, কলা অনুষদের সহ-সভাপতি আব্দুল লতিফ, উপধর্ম বিষয়ক সম্পাদক তাওহীদুল ইসলাম দুর্জয় প্রমুখ। কর্মসূচিতে সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের দুই শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রাবির গ্রন্থাগারের রিডিং রুম, গবেষণা জার্নাল শাখা, সাময়িকী শাখা মিলিয়ে সাতশ’র মতো আসন থাকলেও সেখানে শিক্ষার্থীদের বই নিয়ে প্রবেশের অনুমতি নেই। তবে গ্রন্থাগারের নিচতলায় অবস্থিত ডিসকাশন রুমে বইপত্র নিয়ে প্রবেশের অনুমতি রয়েছে। কিন্তু সেখানে আসন সংখ্যা সীমিত হওয়ায় দীর্ঘদিন থেকে শিক্ষার্থীরা আসন বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আসছেন।