লাইফস্টাইল

যেভাবে রোজায় অ্যাসিডিটি দূর করবেন

সারা দিন রোজা রাখার কারণে অ্যাসিডিটি হয় অনেকের। যদি আপনার বুক, গলা জ্বলে ও গ্যাস ফর্ম করে তবে বুঝতে হবে আপনার অ্যাসিডিটি হচ্ছে। নিয়মিত খাদ্যাভ্যাস আর স্বাস্থ্যকর খাবার অ্যাসিডিটি আপনাকে অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি দিতে পারে।

অ্যাসিডিটি কেন হয়?

অতিরিক্ত ভাজা-পোড়া খেলে, অতিরিক্ত ওষুধ সেবন করার আগে যদি কেউ অ্যাসিডিটি দূর করার ওষুধ না খায়, যেমন- অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের আগে কেউ যদি গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ না খায়। অতিরিক্ত মসলাযুক্ত খাবার খেলে।

এছাড়া ধূমপান আর অ্যালকোহল ও ক্যাফেইন গ্রহণ অ্যাসিডিটির অন্যতম কারণ। আমাদের পাকস্থলী পরিপাক প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য একধরনের অ্যাসিড নিঃসরণ করে। আর অ্যাসিডিটি তখনই হয় যখন প্রয়োজনের তুলনায় বেশি অ্যাসিড নিঃসরণ হয়।

সময় থাকতেই অ্যাসিডিটির প্রতি সচেতন হন। অ্যাসিডিটির জন্য দামিদামি ওষুধ কেনার দরকার নেই, কিছু সাধারণ উপাদান যা আমাদের রান্নাঘরেই পাওয়া যায় তা দিয়েই অ্যাসিডিটি দূর করতে পারবেন।

আসুন জেনে নেই রোজায় অ্যাসিডিটি কীভাবে দূর করবেন।

ঘৃতকুমারী

পেটের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের সঙ্গে অ্যাসিডিটির সমস্যাও সমাধান করে দেয় ঘৃতকুমারী বা এলোভেরা। এক আউন্স ঘৃতকুমারীর রসের সঙ্গে ২ আউন্স পানি মিশিয়ে পান করুন।

ভিটামিন ডি

পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি গ্রহণ করলে তা পরিপাকতন্ত্রের ইনফেকশন সারাতে সাহায্য করে। ডিম, কড লিভার অয়েল, দুধ, মাছ ভিটামিন ডি এর উৎস।

চিপস, কুকিজ, পিৎজা

প্রসেসড ফুড যেমন- চিপস, কুকিজ, পিৎজা পরিপাকতন্ত্রে ব্যাকটেরিয়াল ভারসাম্যের ব্যাঘাত ঘটায়। তাই অ্যাসিডিটি তাড়াতে প্রসেসড ফুড থেকে দূরে থাকুন এবং তাজা সবজি এবং ফলমূল খান।

বেকিং সোডা

এক চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস পানিতে মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন আর মুহূর্তেই চনমনে হয়ে উঠুন। তবে যারা উচ্চ রক্তচাপের রোগী বা যাদের সোডিয়াম খাওয়া মানা আছে তারা এই পদ্ধতি মানতে যাবেন না যেন।

শসার সালাদ

ভাজাভুজির সঙ্গে শসার সালাদ খেয়ে দেখুন অ্যাসিডিটি আপনার কাছ থেকে দূরে থাকবে।

আদা

আদা পাচনতন্ত্রকে ঠাণ্ডা করে। আদা সব প্রকার পেটের পীড়া, গ্যাস প্রতিরোধক। অ্যাসিডিটি থেকে তাৎক্ষণিক মুক্তি পেতে এক কাপ গরম পানিতে হাফ চা চামচ আদা কুচি মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন।