আর্ন্তজাতিক

যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানি নিয়ে যা বললেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন

যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানি নিয়ে যা বললেন পুতিন: যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানির কারণে অস্ত্র প্রতিযোগিতা মানবজাতির নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শুক্রবার জি-টোয়েন্টি সম্মেলনের উদ্বোধনী দিনে পাঁচজাতির অর্থনৈতিক জোট ব্রিকস-এর নেতাদের সঙ্গে পার্শ্ববৈঠকে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। এদিকে, আরেক পার্শ্ববৈঠকে ইউক্রেন-রাশিয়া সমুদ্র উত্তেজনার জেরে পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলেও চীনা প্রসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক হবে বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আজই সে-বৈঠক হবে।

শুক্রবার শিল্পোন্নদেশগুরোর জোট জি-টোয়েন্টির ১৩তম সম্মেলনে আগত অতিথিদের স্বাগত জানান আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মরিসিয়ো মার্সি। উদ্বোধনী ভাষণে বৈশ্বিক সঙ্কট সমাধানে পারস্পরিক সংলাপের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। পরে চলমান বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে দ্বিপক্ষীয় ও বহুপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেন বিশ্বনেতারা।

মূল সম্মেলনের বাইরে এদিন, ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকা নিয়ে গঠিত অর্থনৈতিক জোট ব্রিকসের প্রতিনিধিরাও বৈঠক করেন। বৈঠকে, যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আবারো অস্ত্র প্রতিযোগিতা উস্কে দেয়ার অভিযোগ তোলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, ‘যে সব অস্ত্রের বিস্তাররোধ এবং ধ্বংস করে ফেলার কথা, নতুন করে সে সব অস্ত্রের উন্নয়নের খবরে আমরা উদ্বিগ্ন। যুক্তরাষ্ট্র ইন্টারমিডিয়েট রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমিক দিচ্ছে, একইসঙ্গে কৌশলগত অস্ত্র চুক্তির পরিধি বাড়ানোর প্রত্যাশা প্রত্যাশা করছে– এরকম বৈপরীত্ব অস্ত্র প্রতিযোগিতাকে নিয়ন্ত্রণের বইরে নিয়ে যাবে।’

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বৈঠকে ফ্রান্স-রাশিয়া সম্পর্কের ধারাবাহিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন ভ্লাদিমির পুতিন। সিরিয়া, ইউক্রেনসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন তারা।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘ইস্তাম্বুল সম্মেলনের পর সিরিয়া পরিস্থিতির পরিবর্তন হয়েছে। এছাড়া, গত কয়েকদিনে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে সমুদ্রসীমা নিয়ে যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে তার সমাধান চায় ফ্রান্স। এছাড়াও আজকের আলোচনায় মিনস্ক শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।’

এদিকে, ইউক্রেন-রাশিয়া সমুদ্র উত্তেজনার জেরেই ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে পূর্বানির্ধারিত বৈঠক বাতিল করেছেন বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়া যা করেছে তাতে আমরা সবাই অখুশি। প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিলের একমাত্র কারণ এটাই। আশা করি দু’পক্ষ দ্রুত সঙ্কট সমাধানে সক্ষম হবে। আমি প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের অপেক্ষায় আছি। তবে সবই নির্ভর করছে ইউক্রেনের আটক জাহাজ ও নাবিকদের বিষয়ে মস্কো কি সিদ্ধান্ত নেয় তার উপর।’

পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করলেও চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে ফলপ্রসু আলোচনায় আশাবাদী ট্রাম্প। তীব্র বাণিজ্য যুদ্ধ সত্ত্বেও শনিবার পার্শ্ববৈঠকে বসবেন ট্রাম্প-জিনপিং। বহু চড়াই-উৎরাইয়ের পর সম্মেলনের প্রথম দিনে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকোর মধ্যে উত্তর আমেরিকা বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এ চুক্তি দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্য ধারা পাল্টে দেবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন ট্রাম্প।

এদিন, ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানেরও। সৌদি গণমাধ্যম জানায়, দু’জনের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ ও খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। যদিও এ বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, তাদের মধ্যে কোনো আলোচনাই হয়নি।

সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বৈঠকে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচার নিশ্চিতের পাশাপাশি এ ধরনের বর্বরতা যেনো না ঘটে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

সারাদিনের ব্যস্ততা শেষে রাতে বিশ্বনেতাদের সম্মানে আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট আয়োজিত মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেন অতিথিরা।