রাজনীতি

যারা রাজপথে রক্ত দিতে চায় তাদের ব্লাড ব্যাংকে রক্ত দিয়ে অভ্যাস করার আহবান গয়েশ্বরের

জিয়াউর রহমানের ৩৮ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী তাতী দল আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

রাজনীতি ডেস্ক : বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, “শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান গনতন্ত্রকে ভালোবাসতেন এবং গনতান্ত্রিক মূল্যবোধে বিশ্বাস করতেন। তাই তিনি বহুদলীয় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করেছেন।”

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে জিয়াউর রহমানের ৩৮ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী তাতী দল আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

তাতী দলের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, জিয়াউর রহমান ভোগ বিলাসের রাজনীতি করেননি। তিনি এদেশের মাটি ও মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। জিয়াউর রহমানের আদর্শ অনুসরন করে রাজনীতি করলে ভাগ্যের চাকা পরিবর্তন সম্ভব না। তিনি ভোগের রাজনীতি করেননি ,ত্যাগের রাজনীতি করেছেন।

গয়েশ্বর বলেন, জিয়াউর রহমানের প্রতিষ্ঠিত আদর্শের উপর যদি আমরা সম্পূর্ণভাবে প্রতিষ্ঠিত থাকতে পারতাম তবে আজ আমাদের এই বিরূপ পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হতো না। তিনি বলেন, সুষ্ঠ গনতন্ত্রের জন্য মুক্ত সংবাদ মাধ্যম থাকা প্রয়োজন। বাংলাদেশের গণমাধ্যমগুলো যদি স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারতো তবে গণতন্ত্রের আজ এই পরিনতি ভোগ করতে হতো না।

বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, জিয়াউর রহমান নিজের হাতে কোন ক্ষমতা না রেখে জুডিশিয়াল কাউন্সিল গঠনের মাধ্যমে বিচার বিভাগকে স্বাধীন করেছেন। তিনি কাজ করতে ভালোবাসতেন, দেশকে নিয়ে সবসময় ভাবতেন। তিনি ছিলেন কর্ম প্রেমিক মানুষ।

বিএনপি থেকে নির্বাচিত পাঁচ জন সংসদ সদস্যের শপথ নেয়ার বিষয়ে উল্লেখ করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমরা পাঁচজন লোককে কন্ট্রোল করতে পারিনি আমাদের বুঝতে হবে আমাদের মাঝে কমিটমেন্টের অভাব ছিলো। তিনি বলেন, এই সরকার গায়েবি মামলা দিয়ে আমাদের অনেক ফাঁকিবাজকে নেতা বানিয়ে দিয়েছে। আমার বিরুদ্ধে ৫০ টি মামলা। যে কখনো রাজপথে নামেননি তার বিরুদ্ধেও ২০-২৫ টা মামলা রয়েছে। তিনি বলেন, পাঁচজন নির্বাচিত কোন একজন সংসদ সদস্য বললেন না ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া আমরা সংসদে যাবো না”। তার মানে তাদের কাছে বেগম জিয়ার মুক্তির চাইতে সংসদে যাওয়াটা জরুরী ছিলো।’

গয়েশ্বর বলেন, আন্দোলন সংগ্রাম ছাড়া কখনো কোন দাবি আদায় হয়না। তবে যারা রাজপথে তাজা রক্ত ঢেলে দেয়ার কথা বলে বক্তব্য দিচ্ছেন তারা ব্লাড ব্যাংকে রক্ত দিয়ে অভ্যাস করুন। তিনি বলেন, রাজপথে কেউ ইচ্ছে করে রক্ত দেয় না, রক্ত যায়। এসময় তিনি আরো বলেন, সময়টা হয়তো একটু বেশি লাগছে কিন্তু আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই এদেশের জনগণ গনতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার ও বেগম জিয়াকে মুক্ত করে আনবেই।