খেলাধুলা

ভাগ্য ভালো সবাই অক্ষত আছি : নেইমার

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে প্রীতি ম্যাচ। ব্রাজিলের কাছে যে ম্যাচটি ছিল শুধুই নিজেদের পরখ করে নেয়ার মঞ্চ। তবে বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়া অস্ট্রিয়া এই ম্যাচটিকেও ভীষণ সিরিয়াসলি নিয়ে ফেলেছিল বোধ হয়। ম্যাচের প্রায় পুরোটা সময় ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের মারাত্মক সব ট্যাকেল করেছে তারা।

ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের আটকাতে চেষ্টার ত্রুটি রাখেনি অস্ট্রিয়া। তবে তিতের প্রায় অজেয় হয়ে পড়া দলটিকে থামাতে পারেনি। ৩-০ গোলের বড় জয় নিয়েই রাশিয়ায় পা রাখতে যাচ্ছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ব্রাজিলের জন্য স্বস্তি, নেইমার এই ম্যাচে শুরু থেকেই খেলেছেন। চোটের কারণে গত ফেব্রুয়ারির পর থেকে মাঠের বাইরে থাকা এই ফরোয়ার্ড ম্যাচে চোখ ধাঁধানো একটি গোলও করেন। তবে জয়-পরাজয় তো বড় ব্যাপার নয়, এই ম্যাচে যেভাবে খেলছিল অস্ট্রিয়া, তাতে বেশ দুশ্চিন্তায় ছিলেন ব্রাজিল সমর্থকরা। খেলার চেয়ে যেন ধাক্কা-ধাক্কিতেই নজর বেশি ছিল তাদের।

বিশেষ করে সেলেকাও দলের সেরা তারকা নেইমারকে আটকাতে অস্ট্রিয়ার খেলোয়াড়রা একাট্টা হয়ে পড়েছিলেন। ম্যাচে আটবার ফাউলের শিকার হন পিএসজি ফরোয়ার্ড। তবে বড় কোনো চোটের ঘটনা না ঘটায় ম্যাচ শেষে স্বস্তির সঙ্গে সহজাত ভঙ্গিমায় একটু কৌতুকও করলেন নেইমার।

ম্যাচে প্রতিপক্ষের ট্যাকল নিয়ে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার বলেন, ‘আমরা আসলে আজ ইউএফসির (আল্টিমেট ফাইটিং চ্যাম্পিয়নশিপ) জন্য প্রস্তুত ছিলাম। তবে এটা ভালো যে, সবাই অক্ষত আছি।’

এই ম্যাচে গোল করে ব্রাজিলের সর্বকালের সেরা গোলদাতার তালিকায় যৌথভাবে তিন নাম্বারে উঠে এসেছেন নেইমার। রোমারিওর মতোই এখন তার আন্তর্জাতিক গোল ৫৫টি। সামনে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে নেইমার বলেন, ‘আপনাকে বিশ্বাস রাখতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে। কথা বললে কাজ হবে না। আপনি ব্রাজিলিয়ান হলে আপনাকে স্বপ্ন দেখতেই হবে। আমরা অনেক অনেক স্বপ্ন দেখি। স্বপ্ন দেখায় তো কোনো বাধা নেই।’

নেইমারের সেই স্বপ্নটা যে ব্রাজিলকে হেক্সা জেতানো, সেটা না বললেও আন্দাজ করা যাচ্ছে বেশ!