চট্টগ্রাম বিভাগ

বাঁচানো গেল না একসঙ্গে জন্ম নেয়া সেই ৭ শিশুকে

লক্ষ্মীপুরে একসঙ্গে ৭ সন্তান প্রসব করেছেন নাজমা আক্তার নামের এক নারী। এ বিরল ঘটনার পর মা সুস্থ্য থাকলেও মারা গেছে নবজাতক।

মায়ের ধারণ ক্ষমতার বাইরে থাকায় অপরিপক্ক সময়ে প্রসব হওয়ার কারণে কোনও নবজাতককেই বাঁচাতে পারেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শুত্রবার মধ্যরাতে পৌর শহরের সিটি হাসপাতালে স্বাভাবিক প্রসবের মাধ্যমে ৪টি কন্যা সন্তান ও ৩টি ছেলে সন্তানের জম্ম দেন ওই নারী।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এক নজর দেখতে হাসপাতালে ভিড় করেন স্থানীয়রা।

১৮ বছর বয়সী নাজমা সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়ের পাটোয়ারী বাড়ীর কৃষক রাজু আহমদের স্ত্রী।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়,  রাত ১০টার দিকে প্রসব বেদনা নিয়ে শহরের সিটি হাসপাতালে ভর্তি হন ৫ মাসের অন্তঃস্বত্তা নাজমা আক্তার। মধ্যরাতে স্বাভাবিকভাবে একের পর এক ৭ সন্তান প্রসব করেন তিনি। জম্ম নেওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যে ওই ৭ নবজাতক মারা যায়।

এদিকে এ ঘটনায় রোগী ও স্বজনরা কোনও বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

তবে সিটি হাসপাতালের চিকিৎসক রাকিবুল হাছান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘৭ সন্তানের জন্মের ঘটনা বাংলাদেশে এই প্রথম। এতোগুলো বাচ্চা মায়ের ধারণ ক্ষমতার বাইরে থাকায় অপরিপক্ক সময়ে প্রসব ব্যথা উঠে। এ কারণে জন্ম নেয়া কোনও নবজাতককেই বাঁচানো যায়নি। তবে মা সুস্থ আছ।’