আর্ন্তজাতিক

ন্যাটোকে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করতে বললো ইউক্রেন

ন্যাটোকে আজভ সাগরে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েনের অনুরোধ করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো। রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের সামরিক মুখোমুখি অবস্থানের প্রেক্ষিতে এ অনুরোধ করা হয়।

বৃহস্পতিবার জার্মানির পত্রিকা ‘বিল্ড’-এ দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ন্যাটোকে এ অনুরোধ জানান পোরোশেঙ্কো। তিনি রাশিয়ার ওপর আরো অবরোধ আরোপের জন্য পশ্চিমা সমর্থন চান।

পোরোশেঙ্কোর সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় বিল্ড তাকে জিজ্ঞাসা করে, ‘আজভ সাগরে জার্মানির যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করা উচিত হবে কি না?’

এমন প্রশ্নের জবাবে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘জার্মানি আমাদের অন্যতম কাছের বন্ধু। আমরা মনে করি ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো ইউক্রেনকে সমর্থন করতে এবং তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আজভ সাগরে যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করতে ইচ্ছুক।’

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ‘রাশিয়ার প্রাক্তন সাম্রাজ্য ফিরে পেতে চান’ এমন অভিযোগ করে পোরোশেঙ্কো বলেন, ‘তিনি (পুতিন) কেবল যে ভাষা বুঝেন তা হলো পশ্চিমা বিশ্বের অখণ্ডতা। ক্রিমিয়া, ডনবাস, পুরো দেশ। রাশিয়ার জারদের মতো তিনি নিজেকে ও তার সাম্রাজ্যকে ইউক্রেন ছাড়া সম্পূর্ণ দেখেন না। তিনি আমাদেরকে তাদের উপনিবেশ হিসেবে দেখেন।’

পোরোশেঙ্কো বলেন, ‘আমরা রাশিয়ার আগ্রাসী নীতি মেনে নিতে পারি না। প্রথমত, ক্রিমিয়া, এরপর পূর্ব ইউক্রেন। এখন তিনি আজভ সাগর চাইছেন। জার্মানিরও বিস্ময় প্রকাশ করা দরকার যে : পুতিনকে যদি আমরা না থামাই এরপর তিনি কী করবেন?’

এদিকে, পোরোশেঙ্কোর এমন বক্তব্যের পর চটেছে রাশিয়া। এর প্রতিবাদে ক্রেমলিনের মুখপাত্র জানিয়েছে, উত্তেজনা আরো উস্কে দেওয়ার জন্যই এ ধরনের মন্তব্য করা হয়েছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, পোরোশেঙ্কো নির্বাচনী ও অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ফায়দা লুটতেই এ ধরনের মন্তব্য করেছেন।

তথ্য : আল জাজিরা