জাতীয়

‘দেশের প্রতিটি বিভাগে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হবে’

দেশের প্রতিটি বিভাগে একটি করে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়সহ চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে আরো দুটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এছাড়া সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়নের জন্য আইন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী সংসদে উপস্থিত না থাকায় তার পক্ষে প্র্রশ্নের জবাব দেন প্রতিমন্ত্রী।

সাংসদ মো. নুরুল ইসলাম ওমরের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকে একজন করে মোট ১২ হাজার ৮৩৭ জন কমিউিনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) কর্মরত আছে এবং ১০৫৬ পদে নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন আছে, যা খুব শিগগিরই সম্পন্ন হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের রোগীদের বিদেশ গিয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণের লক্ষ্যে নীতিমালা প্রণয়নের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। কিন্তু, এ পর্যন্ত কতজন রোগী বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেছে এবং কত টাকা ব্যয় হয়েছে তার সঠিক পরিসংখ্যান আপাতত দেওয়া সম্ভব নয়। তবে, নীতিমালা প্রণয়নের পর এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য দেওয়া সম্ভব হবে।

তিনি আরো বলেন, প্রতি বছর আমাদের দেশ থেকে চিকিৎসার জন্য কিছু সংখ্যক রোগী বিদেশে চলে যায়। তবে, মন্ত্রণালয়ের পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, মূলত চারটি রোগের চিকিৎসা গ্রহণের জন্য তারা বিদেশে যান। কারণসমূহ হচ্ছে, আর্থিক স্বচ্ছলতা, বিদেশে চিকিৎসা প্রীতি, হেলথ ট্যুরিজম এবং বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে চিকিৎসা স্বল্পতা। তবে, এ প্রবণতা কমিয়ে আনতে দেশে সকল মেডিক্যাল কলেজ, হাসপাতাল, বিশেষায়িত হাসপাতাল ও জেনারেল হাসপাতালকে আধুনিক যন্ত্রপাতি দ্বারা সুসজ্জিতকরণের মাধ্যমে উন্নত চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে। তাছাড়া বেসরকারি পর্যায়েও রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের বেশকিছু  আধুনিক হাসপাতাল যেখানে অন্য দেশ থেকে এসে রোগীরা চিকিৎসা গ্রহণ করার বহু নজির আছে।