জাতীয়

দারিদ্র্য দূরীকরণকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়ে কাজ করছে সরকার

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশে যত উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে তার মূল লক্ষ্য হচ্ছে দারিদ্র্য বিমোচন। যেকোনো উপায়ে দেশ থেকে দারিদ্র্য হটাতে হবে। এ লক্ষ্যে পল্লী উন্নয়ন একাডেমিগুলোকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে হবে। সরকার দারিদ্র্য দূরীকরণকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়ে কাজ করছে।

সোমবার সচিবালয়ে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সম্মেলন কক্ষে বঙ্গবন্ধু দারিদ্র্য বিমোচন ও পল্লী উন্নয়ন একাডেমির (বাপার্ড) পরিচালনা বোর্ডের দ্বিতীয় সভায় সভাপতিত্বকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব এস এম গোলাম ফারুক, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) প্রধান প্রকৌশলী মো. আবুল কালাম আজাদ, বাপার্ডের মহাপরিচালক শেখ মো. মনিরুজ্জামানসহ বোর্ডের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ থেকে দারিদ্র্য দূরীকরণে দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নে গুরুত্ব দিয়েছেন। দরিদ্র মানুষকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ এবং ‘আশ্রায়ণ’-এর মতো প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন।

তিনি বলেন, দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে কৃষিখাত প্রধান ভূমিকা রাখবে। দেশের বিদ্যমান কৃষি ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রায়োগিক গবেষণা, কৃষকদের প্রশিক্ষণ ও উন্নতমানের প্রযুক্তির উদ্ভাবন করতে হবে। এ কাজে পল্লী উন্নয়ন একাডেমিগুলোকে আরও জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে প্রতিষ্ঠিত বাপার্ডকে দক্ষিণাঞ্চলের জীবনমান উন্নয়নে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে হবে।

তিনি বাপার্ডের হোস্টেলসহ ১০ তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবনের অবকাঠামোগত কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশনা দেন।