আর্ন্তজাতিক

চার্চেই যাজকদের যৌন হেনস্তার শিকার হন নানরা: পোপ ফ্রান্সিস

যাজকরা চার্চেই নানদের যৌন হেনস্তা করে বলে স্বীকার করেছেন পোপ ফ্রান্সিস। এছাড়াও নানদের কোনও কোনও সময় যৌনদাসী করে রাখা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়।মঙ্গলবার মধ্যপ্রাচ্যে একটি ঐতিহাসিক সফরের সময় সাংবাদিকদের পোপ ফ্রান্সিস বলেন, নারীদের দ্বিতীয় শ্রেণীর মানুষ হিসাবে দেখার প্রবণতাটি এখনো গির্জায় একটি সমস্যা হিসাবে রয়ে গেছে।

তিনি বলেন, যাজক এবং বিশপরা নানদের নিপীড়ন করেছে। তবে গির্জা এখন এসব কেলেঙ্কারি নিয়ে সতর্ক হয়েছে এবং এটি বন্ধে কাজ করছে। বেশ কয়েকজন যাজককে এরই মধ্যে বরখাস্ত করা হয়েছে।

পোপ ফ্রান্সিস জানান, তার পূর্বসূরি পোপ বেনেডিক্ট এরকম ঘটনার কারণে পুরো একটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছিলেন।গত নভেম্বর মাসে ক্যাথলিক গির্জার নানদের বৈশ্বিক সংগঠন জানায়, ‘ভয় ও নীরবতার সংস্কৃতির’ কারণে নানরা গির্জার এই যৌন নিপীড়নের ব্যাপারে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে পারেননি।

ধারণা করা হচ্ছে, গির্জার নানরা যে যাজকদের হাতে যৌন নিপীড়নের শিকার হন, সেটা এই প্রথমবারের মতো স্বীকার করলেন পোপ ফ্রান্সিস। তিনি বলেছেন, গির্জায় এসব সমস্যা মোকাবেলার চেষ্টা করা হয়েছে এবং হচ্ছে। তারপরও এসব ঘটনা এখনো ঘটছে।