ঢাকা বিভাগ

গাজীপুরে অগ্নি দুর্টনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬


গাজীপুরের শ্রীপুরের অটো স্পিনিং মিলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে আরও দুটি লাশ বের করে আনা হয়। এর আগে ভোর ৪টার দিকে একে একে ৩টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আক্তারুজ্জামান বলেছেন, পুড়ে অঙ্গার হয়ে যাওয়া লাশগুলো চিহ্নিত করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে কারখানায় লাগা আগুনে রাসেল নামের ১ ব্যক্তি মারা যান। আগুনের ঘটনায় ৪ শ্রমিক নিখোঁজ ছিলেন। বুধবার ভোরে কারখানার ভেতর থেকে আরো ৩টি লাশ উদ্ধার করা হয়। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে আরও দুটি লাশ বের করে আনা হয়। এনিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬জন।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানান, দুপুর পৌনে ১২টার দিকে কারখানার এসি প্ল্যান্ট থেকে দুই জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তারা হলেন- পাবনার আমিনপুর থানার নান্দিয়ারা গ্রামের কেরামত সরদারের ছেলে সুজন সরদার (৩০) এবং ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার ভুবনপোড়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে মো. আবু রায়হান (৩৫)। দু’জনই এসি প্ল্যান্টের শ্রমিক ছিলেন।

এদিকে ভোরে উদ্ধার হওয়া নিহত ৩ জনের পরিচয় মিলেছে। তারা হলেন- শ্রীপুর উপজেলার দক্ষিণ ধনুয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে আনোয়ার (২৭), গাজীপুর ইউনিয়নের হাছেন আলীর ছেলে শাহজালাল (২৬) ও কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক এলাকার ভান্নারা গ্রামের মৃত শামছুল হকের ছেলে সেলিম কবির (৪২)।

আগুন লাগার বিষয়ে কারখানার সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) নূর জাহান জানান, ঘটনার সময় বি শিফটে মোট ৩০০ শ্রমিক কাজ করছিল। কারখানার দেড়তলা উচ্চতার আধাপাকা ব্যাক প্রসেসিং ইউনিটে আগুন লেগে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

তিনি অভিযোগ করেন, ফায়ার সার্ভিসের লোকজনকে খবর দেওয়ার পর দেরিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে। আগুনে কোটি কোটি টাকার মেশিনপত্র ও তুলার বেল পুড়ে গেছে।