রাজনীতি

খালেদা জিয়ার জন্মদিনে বিএনপির কর্মসূচী

কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিনে সারাদেশে জেলা-উপজেলায় দোয়া মাহফিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

রোববার দুপুরে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের উদ্যোগে খালেদা জিয়ার কনিষ্ঠপুত্র মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত দোয়া মাহফিলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কর্মসূচির কথা জানান।

খালেদা জিয়া ১৯৪৬ সালের ১৫ আগষ্ট জন্ম গ্রহণ করেন।

রিজভী আরো জানান, ঈদুল আজহার দিন সকাল ১১টায় বিএনপির মহাসচিবসহ স্থায়ী কমিটির নেতৃবৃন্দ জিয়াউর রহমানের কবরে ফাতেহা পাঠ করবেন।

তিনি বলেন, আজকে সারা জাতি অবরুদ্ধ। কচি কচি বাচ্চাদের যেভাবে রক্তাক্ত করা হয়েছে। তাদের রক্তমাখা কেডস ও রক্তমাখা শার্ট দেখলে কার না হৃদয় ভাঙে। অথচ এ ঘটনাও ঘটিয়েছে এই পাষন্ড সরকার। নিষ্ঠুর দেশে আমরা এখনো বাস করছি। আমরা এখনো কেন ঘর থেকে বের হতে পারি না। কেন আমরা এই অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথের ইট, কাঠ, কংক্রিটের ধুলা উড়িয়ে দাঁড়াতে পারি না। সেটা ভাবলে নিজের কাছে নিজেকেই ধিক্কার লাগে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়া গুলশানের অফিসে অবরুদ্ধ অবস্থায় তার কনিষ্ঠ পুত্র আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যু সংবাদ শুনতে হয়েছে। তিনি শেখ হাসিনার রক্ত চক্ষুর কাছে মাথা নত করেননি। আজ খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন, তাকে মুক্ত করতে হবে। কারণ তার মুক্তির মাধ্যমে একজন ব্যক্তির মুক্তি হবে না। তার মুক্তির মাধ্যমে দেশের ও জনগণের মুক্তি হবে।

দোয়া মাহফিলপূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনায় মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ বক্তব্য রাখেন। পরে আরাফাত রহমান কোকোর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় বিএনপির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নূরে আরা সাফা, ঢাকা মহানগর উত্তর মহিলা দলের সভানেত্রী পিয়ারা মোস্তফা, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভানেত্রী রাজিয়া আলিম, সাবেক এমপি রওশনারা ফরিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।