খুলনা বিভাগ

কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদকে হত্যার হুমকি

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খানকে এবার গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এই হুমকির ঘটনায় বাড়িতে থাকা রাশেদের মা সালেহা বেগম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে পরিবারের লোকেরা ঝিনাইদহের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে।

প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর তিনি জ্ঞান ফিরে পান। বুধবার বিকেলে দুই ব্যক্তি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চরমুরাড়ীদহ গ্রামে রাশেদের বাড়িতে গিয়ে এই হুমকি দেন বলে জানান তার পরিবার।

রাশেদের পরিবার জানিয়েছে, ছেলেকে হুমকি দেয়ায় রাশেদের মা সালেহা বেগম অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে ঝিনাইদহ ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, গতকাল বুধবার রাতে রাশেদের মা সালেহা বেগম সেখানে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন।  বৃহস্পতিবার সকালে তিনি বাড়ি ফিরে যান। রাশেদের বাবা আবাই বিশ্বাস বলেন, বুধবার সন্ধ্যার পর দুই ব্যক্তি মোটরসাইকেলে তাদের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখায় ও হুমকি দেয়। আমরা তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা পরিচয় না দিয়ে চলে যায়।

এ বিষয়ে রাশেদ খান বলেন, বুধবার সন্ধ্যার পর দুই ব্যক্তি মোটরসাইকেলে আমার গ্রামের বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখায় ও হুমকি দেয়। আমার বাবা-মাকে তারা বলেন, আপনার ছেলেকে এসব বন্ধ করতে বলেন। বেশি বাড়াবাড়ি করতে নিষেধ করেন। এর আগেও বলেছি এখনও বলছি। বেশি বাড়াবাড়ি করলে গুলি করে মেরে ফেলব। এমনও লোক আছে যাকে ১০ হাজার টাকা দিলে মেরে ফেলবে। তাই ভালোর জন্য বলছি। আর যেন কোনো আন্দোলন সংগ্রাম না করে। ওকে চুপ হতে বলেন। তাদের এসব কথা শুনে আমার মা অজ্ঞান হয়ে পড়েন। প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর জ্ঞান আসে। হাসপাতালে আমার মাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। সকাল থেকে তিনি সুস্থ আছেন।

তিনি আরও বলেন, এর আগেও আমাকে এমন হুমকি দেয়া হয়েছে।

ঝিনাইদহ সদর থানা পুলিশের ওসি মিজানুর রহমান জানান, স্থানীয় কেউ এটা করেছে বলে আমার মনে হয় না। ধারণা করছি, বাইরের কেউ এসে হুমকি দিয়েছে। এখন পর্যন্ত আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। এমনকি রাশেদের পরিবারের পক্ষ থেকেও থানাকে অবহিত করেনি।