আজকের সেরা সংবাদ

কেমন আছে কবর থেকে উদ্ধার হওয়া সেই নবজাতক!

সম্প্রতি ভারতের উত্তরপ্রদেশের একটি গ্রাম থেকে মাটির পাত্রে রাখা এক নবজাতককে জীবিত উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি নিয়ে অনেকে আনন্দ প্রকাশ করলেও শিশুটি এখন পর্যন্ত শঙ্কামুক্ত নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তারা বলছেন, জীবন বাঁচিয়ে রাখতে প্রাণপণ লড়াই করছে শিশুটি। শিশু বিশেষজ্ঞ রবি খান্না জানিয়েছেন, শিশুটির শরীরে প্লাটিলেটের সংখ্যা মারাত্মক কমে যাওয়ায় তার অবস্থা এখনও গুরুতর।

এদিকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ‘অজ্ঞাত ব্যক্তিদের’ বিরুদ্ধে একটি ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছে। বারেইলি জেলার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, এ ঘটনাটি ব্যাপক প্রচারিত হওয়ার পরেও কেউই শিশুটিকে তাদের সন্তান দাবি করতে এগিয়ে আসেনি। এ কারণে তাদের সন্দেহ, নবজাতক শিশুটিকে জ্যান্ত কবর দেওয়ার ব্যাপারে তার বাবা-মায়ের হাত রয়েছে।

শিশুটিকে উদ্ধারের পর পরই স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. সৌরভ অঞ্জন জানান, শিশুটি সম্ভবত ৩০ সপ্তাহে জন্মগ্রহণ করেছিল । তার ওজন ছিল মাত্র ১ দশমিক কেজি, যা কিনা জন্মের সময়ে শিশুর আদর্শ ওজনের হিসেবে খুব কম। ডাঃ অঞ্জন বিশ্বাস করেন, শিশুটিকে উদ্ধারের কেবল দুই থেকে তিন ঘণ্টা আগে সমাধিস্থ করা হয়েছিল। তার ভাষায়, যদি তাকে উদ্ধার করা না হতো তবে সম্ভবত আরও এক বা দুই ঘণ্টার জন্য সে বেঁচে থাকতে পারতো।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার বেরেলি জেলায় মৃত শিশুর জন্য কবর খুঁড়তে গিয়ে মাটির পাত্রে ওই নবজাতকের সন্ধান পান গ্রামবাসী।এ ঘটনায় হৈ চৈ পড়ে যায় ওই দেশে। উল্লেখ্য, ভারতে এখনও অনেক স্থানে তীব্র লিঙ্গ বৈষম্য বিদ্যমান। দারিদ্রতার কারণে অনেক পরিবার এখনও মেয়ে সন্তানকে পরিবারের বোঝা মনে করে। এ কারণে নিষিদ্ধ থাকলেও অনেক স্থানে এখনও অবৈধভাবে কন্যা ভ্রুণ মেরে ফেলা হয়। এমনকী জন্মের পরও বিভিন্ন স্থানে কন্যা শিশু হত্যার ঘটনা ঘটে।