রাজনীতি

ঈদেও কারাবন্দি খালেদা জিয়া

ঈদের আগে মুক্তি মিলছে না খালেদা জিয়া। যেকারণে এবারের ঈদ কারাগারেই কাটাতে হবে তাকে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় দায়ের করা হত্যা ও নাশকতার দুই মামলায় তার জামিন স্থগিতই রয়েছে। এ মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য ২৪ জুন দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। একই সঙ্গে সময়ের মধ্যে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আবেদনের বিরুদ্ধে নিয়মিত আপিল (লিভ টু আপিল) আবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (৩১ মে) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন, খন্দকার মাহবুব হোসেন প্রমুখ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে, মামলা দুটিতে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিত করেন সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার আদালত। গত মঙ্গলবার দুপুরে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামি পক্ষের শুনানি শেষে বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত এ আদেশ দেন।

বেগম জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন বলেন, ‘আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে বেগম জিয়াকে বের করে আনবো। সরকার চাচ্ছে যে কোনো উপায়ে বেগম জিয়াকে জেলে রাখতে।’

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘উনি হলেন প্রধান ব্যক্তি যার প্ররোচণায় এই জ্বালাও-পোড়াও সারাদেশে শুরু হয়েছিলো। তাৎক্ষণিকভাবে ৭ জন আগুনে পুড়ে মারা গেছে- এই ধরণের মামলায় যার নির্দেশে এগুলেঅ হয়েছে, তাকে যদি জামিন দেয়া হয়, তাতে আইনের প্রতি সাধারণ মানুষের যে শ্রদ্ধাবোধ- তার কী হবে?’

বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় বাসে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে ৮ জনকে হত্যার অভিযোগে নাশকতার এই দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। সোমবার এই দুই মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৬ মাসের জামিন পান বেগম জিয়া।

এদিকে পতাকা অবমাননা ও ভুয়া জন্মদিনের পালনের পৃথক দুই মামলায় বেগম জিয়ার জামিন শুনানি শেষ হয়েছে। আজ এ বিষয়ে আদেশ দেবেন হাইকোর্ট।