খেলাধুলা

আজ নেইমারের কঠিন পরীক্ষা

বিশ্বকাপের শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে ফুটবল ‘জাদুকর’ লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। চাপ থেকে বেরিয়ে এসে স্বরূপে ফিরলেন এবং দলকে জয় এনে দিলেন। মেসি তার পরীক্ষা শতভাগ পাস। অন্যদিক, আজ পরীক্ষা দিতে মাঠে নামবে ফুটবলের আরেক জাদুকর নেইমার। নেইমারদের শেষ ষোলো নিশ্চিত হলে অর্থাৎ বিশ্বকাপে টিকে থাকতে হলে আজ বুধবার (২৭ জুন) সার্বিয়ার বিপক্ষে জিততেই হবে। ড্র করলেও চলবে। আর হারলে নিজেদের বিপদ নিজেরাই ডেকে আনবে সেলেকাওরা।

কিন্তু ড্র করলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারবে না। আর জিতলেই ‘ই’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়ে ব্রাজিল চলে যাবে শেষ ষোলোয়।

বাংলাদেশ সময় বুধবার (২৭ জুন) দিবাগত রাত ১২টায় ব্রাজিল বনাম সার্বিয়া ম্যাটি অনুষ্ঠিত হবে। ভেন্যু: মস্কো।

প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয় পায় পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। তাই একথা বলায় যায়, ব্রাজিলের প্রথম দুই ম্যাচের পারফরম্যান্স হতাশ করেছে ফুটবলবোদ্ধা এবং ফুটবলপ্রেমীদের।

পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের এমন পারফরম্যান্সের কারণ হিসেবে সবাই কাঠগড়ায় দাড় করিয়েছেন নেইমারকে। তাকে ঘিরেই ব্রাজিলের হেক্সা মিশনের স্বপ্ন। আর সেই নেইমার চলতি আসরে এখনও জ্বলে উঠতে পারেননি।

এদিকে সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের আগে ব্রাজিল কোচ তিতে বলেছেন, ‘নেইমারের কাঁধে দলের সকল ব্যর্থতার দায় দেয়া অন্যায় হবে। নেইমার একজন প্রতিভাবান খেলোয়াড়। তবে এখন যেভাবে খেলছে সেটা স্বাভাবিকের তুলনায় খারাপ। এটা হতে পারে না।’

২০১৪ বিশ্বকাপে নেইমারকে হারানোর পর পথ হারায় ব্রাজিল। জার্মানির বিপক্ষে ৭ গোল হজমের পর তৃতীয় স্থান নির্ধারণী খেলায়ও পরাজয়ের স্বাদ পায়।

চলতি বিশ্বকাপ আসরের প্রথম ম্যাচে জয় বঞ্চিত থাকার পর দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় সেলেকাওরা। ওই ম্যাচে কুতিনহো এবং নেইমার একটি করে গোল করে দলকে জয় এনে দেয়।

সার্বিয়ার বিপক্ষে নেইমার নিজের চিরচেনা রূপে ফিরবেন এমন বিশ্বাস রেখে তিতে বলেন, ‘একটা বিষয় খেয়াল করা জরুরি। প্রথম ম্যাচের থেকে দ্বিতীয় ম্যাচে নেইমার উন্নতি করেছে। এটা মূল্যায়ন করা জরুরি। মনে হচ্ছে তৃতীয় ম্যাচে আরও উন্নতি করবে। আমরা তার ওপর সব দায়িত্ব চাপিয়ে দিতে পারি না। আবার পুরোপুরি নির্ভরও হতে পারি না। অনেক সময় আপনাকে ঠান্ডা মাথায় সবকিছু চিন্তা করে এগুতে হবে। নেইমার সেই কাজটাই করছে। ইনজুরি থেকে ফিরে নিজের কাজটা করছে। আমরা আমাদের অনুভূতি এবং চাপ বুঝতে পারছি। তাকে ঘিরেই আমাদের স্বপ্ন। সেই আমাদের স্বপ্ন পূরণ করবে।’

ব্রাজিল কোচ তিতে যেমন নেইমারকে ঘিরেই ‘হেক্সা মিশনের স্বপ্ন’ দেখছেন, তেমনি কোটি কোটি ব্রাজিল সমর্থকরাও একই স্বপ্ন বুনছেন। এখন দেখার বিষয় সেলেকাওদের স্বপ্নপূরণ করতে কতটুকু নিজেকে মেলে ধরতে পারেন নেইমার তারই অপেক্ষা এখন।